রাজ্য ও রাজ্যপাল সংঘাত , বাজেট জটে পিছিয়ে ১০ এর পরিবর্তে ১৩তে হতে পারে বাজেট পেশ

78

ওয়েব ডেস্ক, ৬ ফ্রেব্রুয়ারিঃ রাজ্য ও রাজ্যপাল সংঘাত জারি। এবার রাজ্যের বেঁধে দেওয়া বাজেট বক্তৃতার খসড়া নিয়ে আপত্তি রাজ্যপালের। তা নিয়েই এখন ঘোর সংশয়ে রাজ্য প্রশাসন। বক্তৃতার খসড়া বদলে শুক্রবার বিধানসভায় রাজ্যপাল কী কী বলবেন তা নিয়েই এখন ধন্দে রাজ্য সরকার।

খাস বিধানসভাতেই যদি রাজ্যপাল রাজ্য প্রশাসনের অস্বস্তি বাড়িয়ে কিছু বলেন, তবে তা নিয়ে বিধানসভার অন্দরে যে রাজ্যকে চেপে ধরতে চেষ্টার কসুর করবে না বিরোধীরা, তা বিলক্ষণ জানে সরকার-পক্ষ। সেই কারণেই গত কয়েকদিন ধরেই রাজভবন-দরবার করেছেন মন্ত্রীরা। সেই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারলেও মুখ্যমন্ত্রী না থাকায় বাজেট পেশ পিছিয়ে যেতে পারে বলেই খবর বিধানসভা সূত্রে।

জানা গিয়েছে, আগামী ৭ তারিখ রাজ্যপালের ভাষণ দিয়ে অধিবেশন শুরু হবে। কিন্তু তারপর ৮ ও ৯ তারিখ শনি ও রবিবার হওয়ায় ছুটি রয়েছে বিধানসভা। এতদিন ঠিক ছিল ১০ তারিখ পেশ হবে রাজ্য বাজেট। তারপরে বিকেলের দিকে বাঁকুড়া সফরে যাবেন মুখ্যমন্ত্রী।

কিন্তু শোনা যাচ্ছে, ১০ থেকে ১২ ফেব্রুয়ারি রাজ্যপালের ভাষণ নিয়ে আলোচনা হতে পারে। তারপর ১২ তারিখ রাতে মুখ্যমন্ত্রী কলকাতায় ফিরলে ১৩ তারিখ রাজ্য বাজেট পেশ হতে পারে। তেমনটাই বিধানসভা সূত্রের খবর। প্রথমে যে ১০ ফেব্রুয়ারি বাজেট পেশ হওয়ার কথা ছিল, তা সম্ভবত পিছিয়ে যাচ্ছে। তবে এই নিয়ে যদিও চূড়ান্ত কিছুই শাসকদল কিংবা বিধানসভার সচিবালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়নি।

পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় থেকে শুরু করে অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র পর্যন্ত পালা করে দেখা করেছএন রাজ্যপালের সঙ্গে। ধনখড়ের মান ভাঙাতে একাধিক তৎপরতা নিয়েছে রাজ্য প্রশাসন। বৃহস্পতিবার শান্তিনিকতেন একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে চেয়ে রাজ্য সরকারের কাছে কপ্টার চেয়েছিল রাজভবন। তড়িঘড়ি সেই কপ্টার দেওয়া হয়েছে রাজভবনকে। রাজ্যের পাঠানো কপ্টারে চড়েই শান্তিনিকতনে যান রাজ্যপাল।

তবে জানা গিয়েছে রাজ্যের দেওয়া বাজেট খসড়ায় কিছু বদল আনার পরই শুক্রবার বিধানসভায় তা পাঠ করবেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। বুধবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাজ্যপাল জানিয়েছিলেন, রাজ্য সরকার ও রাজ্যপালের মধ্যে কোনও দ্বন্দ্ব থাকা উচিত নয়। উভয়পক্ষেরই একে অন্যের দৃষ্টিভঙ্গির সঙ্গে সহমত হওয়া প্রয়োজন।

প্রসঙ্গত,পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় থেকে শুরু করে অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র পর্যন্ত পালা করে দেখা করেছএন রাজ্যপালের সঙ্গে। ধনখড়ের মান ভাঙাতে একাধিক তৎপরতা নিয়েছে রাজ্য প্রশাসন। বৃহস্পতিবার শান্তিনিকতেন একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে চেয়ে রাজ্য সরকারের কাছে কপ্টার চেয়েছিল রাজভবন। তড়িঘড়ি সেই কপ্টার দেওয়া হয়েছে রাজভবনকে। রাজ্যের পাঠানো কপ্টারে চড়েই শান্তিনিকতনে যান রাজ্যপাল।

তবে জানা গিয়েছে রাজ্যের দেওয়া বাজেট খসড়ায় কিছু বদল আনার পরই শুক্রবার বিধানসভায় তা পাঠ করবেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। বুধবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাজ্যপাল জানিয়েছিলেন, রাজ্য সরকার ও রাজ্যপালের মধ্যে কোনও দ্বন্দ্ব থাকা উচিত নয়। উভয়পক্ষেরই একে অন্যের দৃষ্টিভঙ্গির সঙ্গে সহমত হওয়া প্রয়োজন।