অন্ধ্রপ্রদেশে পড়তে গিয়ে রহস্যমৃত্যু টালিগঞ্জের কিশোরীর, মৃতার বাবাকে ফোন মুখ্যমন্ত্রীর

0
70

খবরিয়া ২৪ নিউজ ডেস্ক, ২০ অগাস্ট, কলকাতাঃ ভিনরাজ্যে পড়তে গিয়ে রহস্যমৃত্যু হল টালিগঞ্জের ছাত্রীর। ডাক্তারি প্রবেশিকা পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে অন্ধ্রপ্রদেশে গিয়েছিল টালিগঞ্জের রীতি সাহা। টালিগঞ্জের বছর ষোলোর ওই পড়ুয়া বিজ্ঞানের ছাত্রী ছিল। স্বপ্ন ছিল ডাক্তার হওয়া। তাই নিটের প্রস্তুতি নিতে অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপত্তনমের একটি প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হয় সে।

গত এক বছর সেখানেই আছে সে। একই সঙ্গে দ্বাদশ শ্রেণি এবং নিটের প্রস্তুতি চালাচ্ছিল ওই পড়ুয়া। পরিবারের দাবি, ১৪ জুলাই টালিগঞ্জের বাড়িতে হস্টেল কর্তৃপক্ষ ফোন করে জানায় যে, তাদের মেয়ে চারতলা থেকে ঝাঁপ দিয়েছে! সেই খবর পাওয়া মাত্রই অন্ধ্রপ্রদেশে ছুটে যান রীতির বাবা-মা। দেখেন মেয়ে, হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। গত ১৬ জুলাই চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মৃত্যু হয় রীতির।

হস্টেল কর্তৃপক্ষের দাবি, রীতি আত্মহত্যা করছে। কিন্তু সেই দাবি মানতে চাইছে না তার পরিবার। মৃতার বাবা জানান, ‘আমার মেয়ে কেন আত্মহত্যা করবে। চক্রান্ত করে খুন করা হয়েছে আমার মেয়েকে। হস্টেলের ঘরে মদের বোতল পাওয়া গিয়েছিল, সেই অভিযোগ জানিয়েছিল আমার মেয়ে। আক্রোশ থেকেই খুন করা হয়েছে।’

যাদবপুর কাণ্ডের মাঝে এই ঘটনা স্বাভাবিকভাবেই শোরগোল পড়েছে। এই পরিস্থিতিতেই রবিবার রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস গিয়েছিলেন রীতির নেতাজি নগরের বাড়িতে। সেখানে গিয়ে তিনি দেখা করেন রীতির বাবা এবং পরিবারের অন্যান্যদের সঙ্গে। এদিন দুপুরে মৃতার বাবা সুকদেব সাহাকে ফোন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনিই নেতাজিনগর থানায় অভিযোগ দায়েরের নির্দেশ দিয়েছেন। আশ্বাস দিয়েছেন, বিচার পাবেই ওই নাবালিকা। ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্তে নেমেছে লালবাজারের হোমিওসাইড শাখা,  ডিসিএসএসডি বিদিশা কলিতা সহ পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে আগামী কিছুদিনের মধ্যেই সিআইডির একটি দল বিশাখাপত্তনামের উদ্দেশে রওনা দেবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here