মাথাভাঙ্গায় স্কুল শিক্ষিকার বদলির প্রতিবাদে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ ছাত্রছাত্রী অভিভাবকদের

637

কাজল রায়,মাথাভাঙ্গাঃ এক প্রাথমিক স্কুল শিক্ষিকাকে অন্যত্র বদলির করায় ওই স্কুল ঘরে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখালো ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকরা। তাদের দাবি, শিক্ষিকাকে স্কুলে না রাখলে তারা স্কুলের তালা খুলবে না। ঘটনাটি ঘটেছে, মাথাভাঙ্গা ১ নং ব্লকের শিকারপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের শিশুশিক্ষা নিকেতন ভেকসিরডাঙ্গা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

এদিন বিক্ষোভরত ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকেরা জানান, ওই শিক্ষিকাকে অন্যত্র বদলি করা হয়েছে। যদি ওই শিক্ষিকাকে বদলি করা হয় তাহলে ছাত্রছাত্রীরা স্কুল করবে না। এদিন বিদ্যালয় ছাত্রছাত্রী মনীষা বর্মন, জুঁই বর্মন, রাজা রায়েরা বলেন, আমাদের দিদিমণিকে আমরা কিছুতেই বদলি হতে দেবো না। যতদিন বদলির আদেশ প্রত্যাহার করা না হবে ততদিন আমরা স্কুল করবো না এবং মিডডেমিল খাব না।

ছাত্রছাত্রীদের অভিভাবকের পক্ষে গনেশ চন্দ্র বর্মণ বলেন, স্মিতা তরফদার এই বিদ্যালয়ের জনপ্রিয় দিদিমণি, ওনাকে অকারণে বদলি করা হচ্ছে। এটা কিছুতেই আমরা মেনে নেব না। বদলির আদেশ প্রত্যাহার না পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

এবিষয়ে বদলির আদেশ পাওয়া শিক্ষিকা স্মিতা তরফদার বলেন, আমাকে ১২৫ কিলোমিটার দূরে হলদিবাড়ি ব্লকের হেমকুমারী গ্রামের বিনা কারণে হঠাৎ করে বদলি করে দেওয়া হয়। প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষা সংসদ এই সিধান্ত নিয়েছে। তবে কিসের জন্য আমাকে বদলি করা হল বুঝতে পারছি না।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বিমল রায় বলেন, ২৪ শে ডিসেম্বর সহ শিক্ষিকা স্মিতা তরফদারের বদলির আদেশ এর চিঠি পেয়েছি। কি কারনে ওনার বদলি হলো আমার জানা নেই। তবে সহ শিক্ষিকা হিসেবে বিদ্যালয় জন্য উনি যথেষ্ট সাহায্য করতেন।

তবে এবিষয়ে কোচবিহার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারপার্সন কল্যাণী পোদ্দার বলেন, সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ওই শিক্ষিকাকে বদলি করা হয়েছে। এনিয়ে বিক্ষোভ দেখানোর কোনও মানে নেয়।