ছট পুজাকে ঘিরে কোচবিহারের বিভিন্ন ঘাটে মানুষের ঢল

63

কোচবিহার, ২ নভেম্বরঃ গোটা দেশের সাথে কোচবিহারেও পালিত হল ছট পূজা। সূর্য আরাধনার এই উৎসবকে ঘিরে মানুষের মধ্যে ছিল তুমুল উৎসাহ উদ্দীপনা। শনিবার বিকেলে ছিল অস্তমিত সূর্যকে আমন্ত্রণ জানানোর পালা।

এই দিন কোচবিহার শহরের সাগরদিঘির বিভিন্ন ঘাটে বহু পুন্যার্থী সূর্য আমন্ত্রণে অংশ নেয়। এছাড়াও তোর্সার ঘাটেও ছিল এই উৎসবের আয়োজন। রবিবার ভোর রাতে সূর্য আরাধনায় ব্রতী হবেন ধর্মপ্রাণ মানুষ। ছোট পূজা উপলক্ষে এবছর রাজ্য সরকার ৩ দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে। ছট এখন আর বিশেষ সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুষ্ঠান নয়। বর্তমানে এই সূর্য পূজায় অংশ নিচ্ছে বিভিন্ন জাতীর মানুষেরাই। তাই ছট পুজাকে ঘিরে মানুষের উৎসাহ ক্রমশও বাড়ছে। এদিন কোচবিহার শহর বাদেও তুফানগঞ্জ, দিনহাটা, মাথাভাঙা, মেখলিগঞ্জ এ জলাশয়ের ঘাটে ঘাটে ছট পূজা আয়োজিত হয়েছিল।

কিছু বিজ্ঞানীরা মনে করেন এই পুজো বেশ বিজ্ঞানসম্মত। দেহ থেকে ক্ষতিকর টক্সিন এর বহিস্কার করতে সাহায্য করে এই পূজোর প্রথা। সূর্যের সামনে উন্মুক্ত অবস্থায় জলে দাড়িয়ে থাকাকালীন দেহে সৌর তড়িৎ প্রবাহিত হয়। এটি মানব দেহের কর্ম ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। আবার, একদল বৈজ্ঞানিক মনে করেন দেহ থেকে ক্ষতিকর ব্যাক্টেরিয়া ও ভাইরাস তাড়াতেও এটি সক্ষম। আসন্ন শীতের জন্য দেহকে তৈরী করে দেয় এই প্রথা। কিছু পরিবেশ বিজ্ঞানীদের মতে ছট পূজা সবচেয়ে পরিবেশ বান্ধব।

এদিকে ছট পূজা উপলক্ষে কোচবিহার ফাঁসির ঘাট এলাকার তোর্সা নদীতে নির্মিত অস্থায়ী বাঁশের সাঁকো ভেঙে পরায় বিপত্তি দেখা দেয়।