মাদ্রাসায় নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ, প্রতিবাদে পথ অবরোধ স্থানীয়দের

129

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪পরগনাঃ নিজের আত্মীয়দের মাদ্রাসায় নিয়োগ সংক্রান্ত দুর্নীতির অভিযোগ তুলে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাল ওই এলাকার ছাত্রছাত্রী থেকে স্থানীয়রা। ঘটনাটি ঘটেছে, বৃহস্পতিবার বসিরহাট মহকুমার বাদুড়িয়া থানার কাটিয়াহাট এলাকায়।এদিন ভারত বাংলাদেশ ঘোজাডাঙ্গা সীমান্ত রোডে বেঞ্চ টেবিল পেতে বিক্ষোভ দেখান মাদ্রাসার ছাত্রছাত্রী ও স্থানীয় এলাকাবাসীরা। এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে সেখানে ছুটে আসে বাদুড়িয়া থানার পুলিশ। পরে তাঁরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

সম্প্রতি কাটিয়াহাট শাহ রজব আলী সিনিয়র মাদ্রাসায় বেশ কয়েকজনকে নিয়োগ করা হয়।স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ করে বলেন, তাদের কাছে থেকে মোটা টাকা অর্থের বিনিময় এবং নিজের পরিবারের সদস্যকে চাকরি দেওয়া হয়েছে।পাশাপাশি যোগ্য প্রার্থীকে না নিয়ে অদক্ষ প্রার্থীদেরকেই নেওয়া হয়েছে। তাদের আরও অভিযোগ অবিলম্বে মাদ্রাসা নিজস্ব স্বজনপোষণ নিয়োগ পদ্ধতি এমনকি শিক্ষকের পরিবারের সদস্যদের নিয়োগ করা হয়েছে। এরই প্রতিবাদে স্বচ্ছতা আনতে হবে নিয়োগ থেকে শুরু করে যোগ্য প্রার্থীকে বসাতে হবে মাদ্রাসা নিয়োগে।এমনকি ৭৩ শতক জমি কেনা হয়েছে মাদ্রাসার জন্য  প্রায় ৪০ লক্ষ টাকায়। এমনকি আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক নুরুজ্জামান মোল্লার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা । তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ওই মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক।

এদিন স্থানীয় বাসিন্দা আনিস মন্ডল বলেন, সীমান্ত এলাকার বিস্তীর্ণ অঞ্চলের ছাত্ররা এই মাদ্রাসায় পড়ে। স্থানীয় এক বাসিন্দা জমিদান করেছেন। যাতে পঠন-পাঠন শিক্ষাব্যবস্থা ভালো হয়। কিন্তু মাদ্রাসা ক্ষমতার অপব্যবহার করছেন। ইচ্ছামত নিয়োগ স্বজনপোষণ স্বচ্ছতা না মেনে। এইসব কাজ করছেন। আমরা চাই সঠিকভাবে মাদ্রাসার নিয়োগ পদ্ধতি থেকে শুরু করে স্বচ্ছতা আনতে হবে। এমনকি নিজের পরিবারের লোক কে কোন চাকরি দেয়া যাবে না। যোগ্য প্রার্থীকে দিতে হবে।

এদিকে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক নুরুজ্জামান মোল্লা বলেন, এই মাদ্রাসায় দশম শ্রেণি পর্যন্ত পঠন-পাঠন শিক্ষা দেওয়া হয় ছাত্রদের। এখানে প্রায় শতাধিক ছাত্রছাত্রী রয়েছে। এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণীত। নিয়ম মেনে মাদ্রাসায় নিয়োগ পদ্ধতি হয় এবং স্বচ্ছতা তাতে স্বচ্ছতাও রয়েছে।