কেন্দ্র কৃষি আইন নিয়ে সমাধান বের করতে ব্যার্থ, আপাতত কেন্দ্রকে এই আইন স্থগিত রাখার নির্দেশ শীর্ষ আদালতের

107

ওয়েব ডেস্ক, ১১ জানুয়ারিঃ কেন্দ্রের নয়া কৃষি আইন নিয়ে ক্রমশ উত্তাল দেশ। কয়েক দফা বৈঠক শেষেও মেলেনি সুরহা।আর সুরহা না মেলায় কেন্দ্রের তিন কৃষি আইনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন কৃষক নেতারা।সোমবার এই সংক্রান্ত মামলার শুনানিতে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চের পর্যবেক্ষণ, আপাতত কৃষি আইন কার্যকর করা থেকে বিরত থাকুক কেন্দ্র। সোমবার এ সংক্রান্ত এক জনস্বার্থ মামলার শুনানিতে দেশের প্রধান বিচারপতি শরদ আনন্দ বোবদে কার্যত কেন্দ্রকে তুলোধনা করেছেন।

এদিন কেন্দ্রের তরফে আদালতে সওয়াল-জবাবে নিজেদের যুক্তি তুলে ধরেন অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল। কৃষি আইনটি যে কৃষকস্বার্থেই, তা তিনি বোঝান। বিচারপতিরা তারপর প্রশ্ন তোলেন, আইন প্রণয়ন কি আরেকটু বিচক্ষণতার সঙ্গে করা যেত না?

কেন্দ্রের আইনজীবীর উদ্দেশে তিনি ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বলেন, ‘যেভাবে আপনারা কৃষকদের আন্দোলন নিয়ে ভূমিকা পালন করছেন তা যথেষ্টই নিরাশাজনক। এখনও পর্যন্ত কেউ নয়া কৃষি আইনের প্রশংসা করেছেন এমন কোনও ঘটনা নজরে আসেনি।’ তার পরেই মোদি সরকারের রক্তচাপ বাড়িয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আপনারা কৃষি আইন চালু করা থেকে বিরত থাকবেন নাকি আদালতের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে?’

প্রধান বিচারপতি বলেছেন, কেন্দ্র এই পরিস্থিতির সমাধান বার করতে অক্ষম হয়েছে। মানুষ আত্মহত্যা করছেন, বয়স্ক মানুষ, মহিলারা রাস্তার ওপর ধর্নায় বসে রয়েছেন। কৃষি আইন খতিয়ে দেখতে কমিটি তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা। যার যা বলার, তা কমিটির সামনে এসে বলতে হবে।