কোচবিহারের চার বিধানসভা কেন্দ্রকে উপদ্রুত এলাকা বলে ঘোষণা বিজেপির রাজ্য সভাপতির

222

কোচবিহার, ৮ এপ্রিলঃ কোচবিহারের চার বিধানসভাকে কেন্দ্রকে উপদ্রুত এলাকা বলে জানালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলিপ ঘোষ। আজ সকালে কোচবিহারে প্রাতঃ ভ্রমণে বের হন দিলিপ বাবু। শহরের বেশ কিছু এলাকা ঘুরে রাসমেলা মাঠ সংলগ্ন এলাকায় একটি চায়ের দোকানে বসেন। সেখানে সাংবাদিকদের সাথে বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলার সময় জানান, সিতাই, শীতলখুচি, নাটাবাড়ি ও দিনহাটা উপদ্রুত এলাকা। ওই এলাকা গুলোতে মুসলমানদের রাজনৈতিক দাস বানিয়ে রাখা হয়েছে। তাঁরা এসব করে পিছিয়ে যাচ্ছে।

গতকাল শীতলখুচির গোঁসাইয়েরহাটে সভা করতে যান দিলিপ ঘোষ। সেখানে তাঁর উপড়ে বোমা ছুড়ে আক্রমণ করা হয়। ভাঙচুর করা হয় তাঁর গাড়িও। কার্যত প্রাণ হাতে নিয়ে সেখান থেকে ফিরে আসেন তিনি। ওই ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানিয়েছেন দিলিপ বাবু।

এদিন ফের কোচবিহারের একাধিক কর্মসূচিতে যোগ দেবেন তিনি। তাঁর আগে প্রাতঃ ভ্রমণে বের হয়ে কোচবিহার জেলার ৯ বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে চার টিকে কেন উপদ্রুত এলাকা বললেন, তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে চর্চা শুরু হয়েছে। বাম আমল থেকেই সিতাই, শীতলখুচি ও দিনহাটা রাজনৈতিক উত্তেজনা প্রবণ এলাকা। তৃণমূল কংগ্রেসের আমলেও সেই উত্তেজনা কোন অংশে কমে নি। গত লোকসভা নির্বাচনে কোচবিহার কেন্দ্র থেকে বিজেপি জয়লাভ করার পর এখানে তাঁদের সাংগঠনিক শক্তি অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে। তারপরেও শীতলখুচিতে বিজেপির রাজ্য সভাপতিকে গিয়ে বিরোধীদের বাধার মুখে পড়তে হয়েছে। যা নিয়ে বিজেপি নেতৃত্ব কোচবিহারের কোন কোন কেন্দ্র গণ্ডগোল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, তা নিয়ে আলোচনার পরেই জেলার ওই চার বিধানসভা কেন্দ্রকে উপদ্রুত এলাকা বলে দিলিপ বাবুর বক্তব্যে উঠে এসেছে।