কর্মী ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদ ও বকেয়া বেতনের দাবিতে অবস্থান বিএসএনএল কার্যালয়ে

49

কোচবিহার, ১ নভেম্বরঃ কর্মী ছাটাইয়ের প্রতিবাদে এবার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে পথে নামল প্রাক্তন সৈনিক সংঘ।দীর্ঘদিন থেকেই বিএসএনএল দপ্তরে অবস্থান বিক্ষোভ করছেন তাঁরা।তাঁদের দাবি, চুক্তি অনুযায়ী ৬০ বছর পর্যন্ত তাঁরা কাজে বহাল থাকবেন। কিন্তু সম্প্রতি তাঁদের ছাটাইয়ের কথা জানিয়ে দেওয়া হয় কর্তৃপক্ষ থেকে। শুক্রবার থেকে তাঁদের ছাটাইয়ের নির্দেশ দেওয়া হয়।

আর এর প্রতিবাদে এদিন কোচবিহারের সাগরদিঘি সংলগ্ন বিএসএনএল দপ্তরের সামনে গত ৯ দিন থেকে অবস্থান করছেন ওই নিরাপত্তা কর্মীরা। এরপরেও এই ব্যবস্থার কোনও সর্দথক ভূমিকা না মেলায় এদিন পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আন্দোলনে নামেন তাঁরা ।

তাঁদের দাবি, চুক্তি অনুযায়ী ৬০ বছর পর্যন্ত তাঁরা কাজে বহাল থাকবেন। কিন্তু সম্প্রতি তাঁদের ছাটাইয়ের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়। শুক্রবার থেকে তাঁদের ছাটাইয়ের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তাঁরা। এমন অবস্থায় প্রায় দিসেহারা অবস্থার মধ্যে রয়েছেন নিরাপত্তা কর্মীরা।

সংগঠনের তরফে তপন চৌধুরি বলেন, ‘গত ৭ মাস থেকে বেতন দেওয়া হচ্ছে না। আমাদের চুক্তি অনুযায়ী ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত কাজ করার কথা ছিল, কিন্তু আমাদের হঠাৎ করেই ছাটাইয়ের নির্দেশিকা জারি করে কাজ থেকে বরখাস্ত করে দেওয়া হয়।’

এর পাশাপাশি এদিন মাথাভাঙ্গায় বকেয়া বেতন না মেলার দাবিতে বিএসএনএল দপ্তরের সামনে অবস্থান বিক্ষোভ বসেন কর্মীরা। কর্মী ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদ ও বকেয়া বেতনের দাবিতে অবস্থান বিএসএনএল কর্মীদের।

তাঁদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে কাজ করার পরও মেলেনি বকেয়া বেতন। আর সেই অভিযোগের ভিত্তিতে এদিন আবস্থান বিক্ষোভে বসেন কর্মীরা। এদিন আন্দোলনরত কর্মী মনেশ বর্মণ বলেন, দীর্ঘ তিনবছর ধরে তারা বেতন পাচ্ছেন না। বহু টাকা বকেয়া পড়ে থাকা সত্বেও সংস্থা আমাদের কর্মীদের কোনও বেতন দিচ্ছে না।

এই অবস্থায় ওই কর্মীরা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন, সেখানকার রায়ে সুরানা মিললেও কর্মীরা পাচ্ছেন না টাকা। এই সমস্যার যদি দ্রুত সমাধান না হয় তবে তাঁরা আগামীতে আরও বড় আন্দোলনে পথে পা বাড়াতে বাধ্য হবে ।