পঞ্চম শ্রেণীর নাবালিকা ছাত্রী খুন কাণ্ডে অভিযুক্তদের ১২দিনের পুলিশি হেফাজতে নির্দেশ দিল আদালত

0
45

খবরিয়া ২৪ নিউজ ডেস্ক, ১২ ফেব্রুয়ারিঃ ইংরেজবাজারে পঞ্চম শ্রেণীর নাবালিকা ছাত্রী খুন কাণ্ডে ১২ দিন পুলিশি হেফাজতে থাকার পর ধৃতকে নতুন করে আরও দুইদিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিল মালদা আদালত। কিভাবে ধৃত ওই যুবক একাই ১১ বছর বয়সী নাবালিকা ছাত্রীকে শরীর থেকে মুন্ডুছেদ করে খুনের ঘটনা ঘটালো,তা নিয়েও তদন্তে ভাবিয়ে তুলেছে পুলিশকে। এই নাবালিকা ছাত্রী খুনের পিছনে আরও দুই থেকে তিনজনের মদত থাকতে পারে বলেও সন্দেহ পুলিশের।

জানা যায়,সোমবার ধৃতক আদালতে পেশ করার আগে রবিবার এই ছাত্রী খুন কাণ্ডে ব্যবহৃত ঘাতক ধারালো অস্ত্রটি উদ্ধার করেছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। চপার জাতীয় এই ধারালো অস্ত্রটি ধৃত শ্রীকান্ত কেশরী ইংরেজবাজার শহরের দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন মার্কেটের দোকান থেকে কিনেছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ। আর ওই ঘাতক অস্ত্রটি খুনের ঘটনায় ব্যবহারের পর ইংরেজবাজার পুরসভার ২০ নম্বর ওয়ার্ডের মহানন্দা নদীর পাড়ে একটি পরিত্যক্ত জঙ্গলে ফেলে দিয়ে এসেছিল। তবে নৃশংসভাবে ওই নাবালিকা ছাত্রীর খুনের ঘটনায় ধৃতের যাতে সর্বোচ্চ ফাঁসির সাজা হয় সে ব্যাপারে মালদার বিভিন্ন মহলে দাবি উঠেছে।

উল্লেখ্য,গত ২৯ জানুয়ারি উত্তর বালুচর এলাকার বাড়ির সামনে থেকে নিখোঁজ হয়ে যায় পঞ্চম শ্রেণীর নাবালিকা ছাত্রী সৃষ্টি কেশরী (১১)। ৩১ জানুয়ারি ইংরেজবাজারের আম মার্কেটের পরিত্যক্ত জঙ্গল থেকে মুন্ডুচ্ছেদ অবস্থায় ওই ছাত্রীর দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। শ্রীকান্ত কেশরী মৃতের সম্পর্কিত দাদা বলেও জানিয়েছে পুলিশ। এই ঘটনার পর জেলা জুড়েই বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত শ্রীকান্ত কেশরী গ্রেফতারের পর মালদা আদালত ১২ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছিল। পুলিশকে বিভ্রান্তি করা ছাড়া ধৃত কোনরকম তদন্তে সহযোগিতা করে নি। অবশেষে জিজ্ঞাসাবাদেই রবিবার ওই নাবালিকা ছাত্রী খুন কাণ্ডে ব্যবহৃত ঘাতক অস্ত্রটি উদ্ধার হয়। খাসি, মুরগি মাংস কাটার ক্ষেত্রে বিক্রেতারা যে অস্ত্র ব্যবহার করে থাকে, মূলত সেই ধরনের অস্ত্র দিয়েই শরীর থেকে মুন্ডুচ্ছেদ করেই খুন করা হয়েছিল ওই নাবালিকা ছাত্রীকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here