কল সেন্টারের আড়ালে প্রতারণার চক্র,ধৃত ১০

245

কোলকাতা, ৩০ জানুয়ারিঃ  বিদেশি সফটওয়্যার সংস্থার নাম করে বিদেশিদের কাছ থেকে মোটা টাকা হাতানোর অভিযোগে ১০ জনকে আটক করল পুলিশ।অভিযোগ কল সেন্টারের আড়ালে প্রতারণা চক্রের কাজ করত একটি সংস্থা। সেই চক্রের পর্দাফাঁস করল কলকাতা পুলিশ।অভিযান চালিয়ে চক্রের ১০ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।ইতিমধ্যেই তদন্তকারীরা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অপরাধ মূলক ষড়যন্ত্র প্রতারণা সহ একাধিক ধারায় বেনিয়াপুকুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এইসব প্রতারণা চক্রের জেরে বেশ ভালো রকমই প্রতারিত হতেন বিদেশীরা। বুধবার রাতে আবারও কলকাতা পুলিশের হাতেই ফাঁস হল শহরের আরও একটি প্রতারণা চক্র। এই প্রতারণা চক্র আবার চালানো হত কলসেন্টারের মাধ্যেমে, যার মূল শিকার ছিল বিদেশের নাগরিকেরা।

জানা গিয়েছে, কিছুদিন আগে একটি সফটওয়্যার সংস্থার পক্ষ থেকে অনলাইনে প্রতারণার ব্যাপারে অভিযোগ জানানো হয় কলকাতা পুলিশের কাছে। তার ভিত্তিতে শুরু হয় তদন্ত। পুলিশ জানতে পারে, মধ্য কলকাতার বেনিয়াপুকুর অঞ্চলে বসে কলসেন্টারের নামে প্রতারণা চালাচ্ছে একটি চক্র। তাতেই বহু বিদেশী মোটা অঙ্কের টাকা খোয়াচ্ছেন। এরপর কলকাতা পুলিশ বুধবার রাত্রে অভিযান চালায় বেনিয়াপুকুর এলাকার নাসিরুদ্দিন রোডের একটি বাড়িতে চলা ওই কলসেন্টারে। সেখান থেকেই গ্রেপ্তার হয় আশফাক খুরশিদ, মুহাম্মদ কালাম, মোহাম্মদ ইমরান, শামস তানভীর, মোহাম্মদ রেজাউদ্দিন, মোহাম্মদ শোয়েব, আলী হামজা, মোঃ মিরাজ, শেখ ইরফান, সানে জাফর নামে ১০ জনকে। প্রত্যেকেই এ শহরের বিভিন্ন প্রান্তের বাসিন্দা। বেশ কিছুদিন যাবৎ তাঁরা এই কল সেন্টারের অফিস থেকে অনলাইনের মাধ্যমে বিদেশিদের প্রতারণা করে চলছিল। ওই কলসেন্টার থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয় ১১টি মোবাইল ফোন, ৭টি ল্যাপটপ ও ৫টি বিদেশী এটিএম কার্ড।