অপারেশন টেবিলে শুয়ে চিকিত্সক নার্সদের গান শুনিয়ে নয়া নজির সৃষ্টি করল ৬ বছরের ক্ষুদে

31

পার্থ দাস, সিউড়িঃ অপারেশন টেবিলে শুয়ে চিকিত্সক নার্সদের গান শুনিয়ে নয়া নজির সৃষ্টি করল ছয় বছরের ক্ষুদে অনন্য চক্রবর্তী(৬)। তার বাড়ি সিউড়ি শহরের পাইক পাড়া এলাকায়।

পরিবার সুত্রে জানা যায়, অনন্য মাস কয়েক ধরে ফাইমোসিস রোগে ভুগছিলো। চিকিৎসককে দেখানোও হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অস্ত্রপচার ছাড়া রোগ নিরাময় সম্ভব নয় বলেই জানিয়ে দেন চিকিৎসক। ছেলে যাতে দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠে তার জন্য চিকিৎসকের ওপরই ভরসা রাখেন তারা। সে মতোই চারদিন আগে সিউড়ির একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় অনন্যকে। নির্দিষ্ট সময়ে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। বাইরে পরিবারের সদস্যরা ছোট্ট ছেলেটার জন্য উদ্গ্রীব হয়ে আছেন।

কিন্তু ছয় বছরের অনন্য যেন ব্যতিক্রম। তার চোখে মুখে কোন ভয় নেই। শরীরের যে অংশে অস্ত্রপচার করা হবে সেখানটা অবশ করে দেন চিকিৎসকরা। তারপর শুরু হয় অস্ত্রপচার। আর চিকিৎসক বলেন গান জানিস। সঙ্গে সঙ্গে গান শোনাতে শুরু করে অনন্য। প্রথমেই গুন গুনিয়ে ওঠে ‘টিপটিপ টুপটাপ বৃষ্টি, সেই থেকে পরছে তো পরছে। চুপচাপ ঘরে বসে থাকতে মনটা কেমন যেন করছে’।

কয়েক মিনিট পর শেষ হয়ে গেল গানটি। চিকিৎসক ফের জানতে চান আর কোন গান জানে কিনা। অনন্য দমে যাওয়ার ছেলে নয়। সঙ্গে সঙ্গে তার স্কুল সরোজীনি দেবী শিশু মন্দিরে প্রতিদিন যে মাতৃবন্দনা করানো হয়। সেই গান শুরু করে দেয়। অপারেশন শেষ হওয়ার পর পেরিয়ে গিয়েছে চারটি দিন। ধিরে ধিরে সুস্থ হয়ে উঠছে অনন্য।