২৪ ঘন্টার মধ্যে মমতার চিঠি পেয়ে খুশি রাজ্যপাল

533

ওয়েব ডেস্ক, ২৯ ডিসেম্বরঃ বাংলার রাজ্যপালের দায়িত্ব নেওয়া ইস্তক কোনও না কোনও ইস্যুতে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বিবাদ লেগেই আছে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের। যাদবপুরে বাবুল সুপ্রিয়োকে ঘেরাও হোক আর সেই যাদবপুরের সমাবর্তন থেকে বাদ পড়া-ধনখড় নতুন বাসিন্দা হয়ে আসার পর থেকে একের পর এক বিষয়ে নবান্নের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছে রাজভবন। মাঝেমাঝে তা চূড়ান্ত তিক্ততায় পরিণত হওয়ার সাক্ষীও থেকেছে রাজ্যবাসী। কিন্তু নতুন বছর শুরুর মুখে দু’তরফের সম্পর্ক মসৃণ করার একটা ইঙ্গিত মিলল শনিবার।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর চিঠির জবাব না দিলে নিয়ম করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। শিক্ষাক্ষেত্রে সাম্প্রতিক পরিস্থিতির কথা জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছিলেন রাজ্যপাল। নবান্ন থেকে সেই চিঠির উত্তর এসেছে রাজভবনে। একদিনে চিঠি পেয়েই খুশি ধনকর। তাও টুইট করে মানুষকে জানালেন তিনি নিজেই। টুইটে লিখেছেন, ‘গণতন্ত্রে এটাই নিয়ম।’

গত ২৫ ডিসেম্বর মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছিলেন ধনকর। ২৬ তারিখই মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে সেই চিঠির উত্তর এসেছে রাজভবনে। রাজ্যপাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির বিষয়ে কথা বলতে চেয়েছিলেন। পাল্টা মুখ্যমন্ত্রী চিঠি লিখে জানিয়ে দিয়েছেন, রাজ্যপালের চিঠি তিনি শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে পাঠিয়ে দেবেন। তারপর পার্থ চট্টোপাধ্যায় রাজ্যপালের সঙ্গে কথা বলে নেবেন। সেই চিঠির ছবি টুইট করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর।

অন্যদিকে, শনিবার এবিষয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন আগে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় গুলির সঙ্গে কথা বলবেন রিপোর্ট নেবেন তারপর রাজ্যপালের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবেন। তাঁর কথায় ‘মুখ্যমন্ত্রী তো রাজ্যপালকে জানিয়ে দিয়েছেন সুবিধামতো কথা বলব। সুতরাং আগে রিপোর্ট নেব তারপর কথা বলা হবে।’