আমবাগান থেকে উদ্ধার প্রেমিক যুগলের ঝুলন্ত দেহ, চাঞ্চল্য এলাকায়

301

বিশ্বজিৎ মণ্ডল,মালদাঃ গলায় ফাঁস লাগিয়ে একই দড়িতে আত্মহত্যা প্রেমিক যুগলের। আমবাগান থেকে উদ্ধার হয় প্রেমিক যুগলের ঝুলন্ত দেহ। ঘটনাটি ঘটেছে, মালদার রতুয়া থানার নাজিরপুর আটগাম এলাকায়। বুধবার সকালে এই দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। প্রেমিকার বাড়ি থেকে প্রায় ২০০ মিটার দূরে উদ্ধার হয় দেহ দুটি। যদিও ঘটনার পেছনে কারো জড়িত থাকার অনুমান করছে মৃত যুবকের পরিজনেরা। এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে রতুয়া থানার পুলিশ। পড়ে তাঁরা এসে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য স্থানীয় হাসপাতালে পাঠায়।  

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মৃত ওই যুবকের নাম বিফল মন্ডল(২১)। সে রতুয়ার কাহালা গ্রামের বাসিন্দা। পেশায় ভিনরাজ্যের শ্রমিক ছিলেন ওই যুবক। অপরদিকে মৃত যুবতীর নাম রাধা মন্ডল(১৯)। সে মানিকচক কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী। সম্পর্কে একে অপরের আত্মীয় বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোজকার মত প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে এলাকাবাসীর নজরে আসে আমবাগানের গাছের মধ্যে এই যুবক যুবতীর ঝুলন্ত দেহ। ঘটনা চাউর হতেই ঘটনাস্থলে ভিড় জমায় এলাকাবাসীরা। একটি দড়ির এক প্রান্তে যুবতী,আরেক প্রান্তে যুবক ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে। প্রেম সংক্রান্ত কারণেই এই ঘটনা বলে অনুমান করছে স্থানীয়রা।

মৃত যুবকের পরিবার সূত্রে জানা গেছে,গত রবিবার ভিন রাজ্য থেকে কাজ করে বাড়ি ফিরেছিলে মৃত যুবক বিফল। শারীরিক অসুস্থতার চলছিল তার। মঙ্গলবার রাতেও পরিবারের সকলের সাথে খাওয়া-দাওয়া শেষ করে। অসুস্থ থাকায় বুধবার তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কখন বাড়ি থেকে বেরিয়ে এই এলাকায় এসে হাজির হয় বিফল,তা পরিবারের সদস্যরা কিছুই জানেননা।

যদিও পরিবারের অভিযোগ,তাদের প্রেম সম্পর্কে ঘটনা জানতো দুই পরিবারই। কিন্তু তাতে নারাজ ছিল মেয়ের পরিবারের সদস্যরা। মাস কয়েক আগে এই প্রেম কারন নিয়ে দুই পরিবারে বচসা হয়। এমনকি যুবতীর বাবা গন্ধর্ব মন্ডল সহ পরিবারের সদস্যরা মারধরও করেছিল বিফলকে। দেহ দেখেও মনে হচ্ছে, এই ঘটনার সাথে মেয়ের পরিবারের লোকেরা জড়িত থাকার অনুমান করেছে যুবকের পরিজনেরা। তবে কি কারনে ওই যুগল একই সাথে ঝুলে পড়ল তার তদন্ত করেছে ঘটনার ।