কোচবিহারে গা ঢাকা দিয়ে রয়েছে জেএমবি জঙ্গি, আশঙ্কা এনআইএর

3578

ওয়েব ডেস্ক, ২ ফেব্রুয়ারিঃ এক সময় কোচবিহারের সীমান্ত লাগোয়া গ্রাম দিনহাটার গীতালদহে ধর্মীয় শিক্ষক হওয়ার কথা ভেবেছিল।কিন্তু এখন সে ভারতের ন্যাশেনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির (এনআইএ) তালিকায় মোস্ট ওয়ান্টেড জেএমবির জঙ্গি। তার নাম মহম্মদ সালাউদ্দিন ওরফে সালেহান। বাংলাদেশের একটি আদালতে মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত ওই সালাউদ্দিন খাগরাগড় বিস্ফোরণ কান্ডে অন্যতম অভিযুক্ত। তাকে ধরতে কার্যত হন্যে হয়ে খুঁজছে এনআইএ। এমনই খবর প্রকাশিত হয়েছে একাধিক বাংলা নিউজ পোর্টালে।  

ওই খবর গুলোতে জানানো হয়েছে, ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া ৫ জেলায় জেএমবির ওই জঙ্গির লুকিয়ে থাকার সম্ভবনা রয়েছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে এনআইএ। জেলা গুলির মধ্যে কোচবিহার তো বটেই নদিয়া, মুর্শিদাবাদ, মালদা ও উত্তর দিনাজপুররের নামও রয়েছে। একটা সময় সালাউদ্দিন তামিলনাড়ু, কর্ণাটক এবং কেরালায় বাংলাভাষী শ্রমিকদের সাথে মিশে ছিল। সেখানে জেএমবির নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে দেওয়ার কাজও করছিল বলে এনআইএ পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। খাগড়াগড় বিস্ফোরণ মামলার মূল সন্দেহভাজন জেহিদুল ইসলামকে বেঙ্গালুরুতে গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদ করে দক্ষিণ ভারতের রাজ্যগুলিতে সালাউদ্দিনের কার্যক্রম জানতে পারে এনআইএ-র আধিকারিকরা। বর্তমানে সে ভারত- বাংলাদেশ লাগোয়া কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর, মালদহ, মুর্শিদাবাদ ও নদিয়ার কোনও গ্রামে গা ঢাকা দিয়ে রয়েছে। তাই কোচবিহারের চ্যাংরাবান্ধা ছাড়াও দিনহাটার সীমান্ত গ্রাম কোচবিহারের গীতলদহেও এনআইএ অভিযান চালিয়েছিল বলে খবরে উল্লেখ করা হয়েছে।

যদিও এবিষয়ে কোচবিহার জেলা পুলিশ সুপার সন্তোষ নিম্বালকর জানিয়েছেন এ ধরনের কোন খবর তাঁদের জানা নেই।