মিস শেফালি-র জীবনাবসান, শোকের ছায়া চলচ্চিত্র জগতে

207

ওয়েব ডেস্ক, ৬ ফেব্রুয়ারিঃ প্রয়াত হলেন বাঙালির প্রথম ক্যাবারে ডান্সার মিস শেফালি।মৃত্যু কালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা নাগাদ মৃত্যু ঘটে মিস শেফালির।বাংলা চলচ্চিত্র জগতে তিনিই ছিলেন প্রথম ক্যাবারে ডান্সার। যাঁর যাদুতে মেতে ছিলেন সকলেই। একাধিক ছবিতে তাঁর উপস্থিতি আজও দর্শকের স্মৃতিতে উজ্জ্বল।

শেষ কয়েকদিন বার্ধক্য জনিত কারণে অসুস্থ হয়ে পড়ছিলেন তিনি।হাসপাতালেও ভর্তি করা হয় তাঁকে। সেখান থেকে ছুটি পেয়ে শেষ কয়েকদিন বাড়িতেই ছিলেন তিনি।বুধবার ভোরে স্বাস্থ্যের অবনতী ঘটলে মৃত্যুর কোলে ঢোলে মিস শেফালি। সত্যজিৎ রায়ের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বী ও সীমাবদ্ধ ছবিতে কাজ করেছিলেন তিনি।

ছয়ের দশকের খ্যাতনামা নর্তকী তো বটেই, কলকাতার প্রথম ক্যাবারে ডান্সারও তিনি, অর্থাৎ মিস শেফালি। একটা সময় ছিল যখন রাতের কলকাতা মাতিয়ে রাখত একটাই নাম, মিস শেফালি। কলকাতার খ্যাতনামা সেই ক্যাবারে নর্তকী আজ কোথাও গিয়ে স্মৃতির ভারে মলিন। ‘কুইন অফ ক্যাবারে’কে ঠিক এই নামেই ডাকা হত। বাংলা ইন্ডাস্ট্রির ওঠাপড়া, তৎকালীন রাজনৈতিক অস্থিরতা – কত কিছুর সাক্ষী এই মানুষটি। বলিউড হোক বা টলিউড, সেসময়ে মিস শেফালির নাম শোনেননি, এমন মানুষ হয়তো খুঁজে পাওয়া দায়। যাঁর রূপের ছটায় মুগ্ধ হতেন একাধিক নামী ব্যক্তিত্ব, আজ সেই রূপ ম্লান। তাঁর নাচের কদর করতেন স্বয়ং উত্তমকুমার আর সুচিত্রা সেন। কদর করেছিলেন হেলেনও। ছিলেন কলকাতার বহু পুরুষের রাতের ঘুম কেড়ে নেওয়ার মতো ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন। তবুও কেউ কোনওদিন আঙুল তুলে তাঁর দিকে একটা কথাও বলতে পারেননি। নাচের মঞ্চ থেকে সরে গিয়েও ধরে রেখেছিলন অসংখ্য মানুষের শ্রদ্ধা।

মিস শেফালি অভিনয় করেছেন সত্যজিৎ রায়ের ‘‌প্রতিদ্বন্দ্বী’‌ (১৯৭০) এবং ‘‌সীমাবদ্ধ’‌ (১৯৭১) ছবিতে। ‘বহ্নিশিখা’ (১৯৭৬), ‘পেন্নাম কলকাতা’ (১৯৯২)-র মতো ছবিতেও দেখা গিয়েছে তাঁকে।