পেট্রোল পাম্পের মালিকের বাড়িতে মৃতদেহ রেখে রাতভর পথ অবরোধ স্থানীয়দের

335

নরেশ ভকত, বাঁকুড়াঃ বেসরকারি পেট্রোল পাম্পের ম্যানেজারের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল বাঁকুড়ার ওন্দা থানার মাজদিহা গ্রামে। চুরির মিথ্যা অপবাদে ওই ম্যানেজার আত্মহত্যা করেছে এই দাবি তুলে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণের দাবিতে পেট্রোল পাম্পের মালিকের ঘরের দরজায় মৃতদেহ ফেলে রেখে পথ অবরোধ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় দশ বছর ধরে ওন্দা থানার মাজদিহা পেট্রোল পাম্পে ম্যানেজার হিসাবে কাজ করতেন মাজদিহা গ্রামেরই বাসিন্দা দেবকীনন্দন মুখার্জী। অন্যান্য দিনের মতো এই পেট্রোল পাম্প থেকে গত ১৮ অক্টোবর তেল বিক্রির টাকা বাঁকুড়ায় একটি রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাঙ্কের শাখায় জমা দিতে গিয়েছিলেন ম্যানেজার দেবকীনন্দন মুখার্জী। ব্যাঙ্কে পৌঁছানোর পর ওই ম্যানেজার দেখেন তাঁর হিসাবের তুলনায় ব্যাগে তিন লক্ষ টাকা কম আছে।

বিষয়টি দেবকীনন্দন মুখার্জী পেট্রোল পাম্পের মালিককে জানান, পেট্রোল পাম্পের মালিক বিষয়টি লিখিত ভাবে বাঁকুড়া সদর থানায় জানান। পেট্রোল পাম্পের মালিক পুলিশকে জানানোর অভিযোগে দেবকীনন্দন মুখার্জীকে অত্যন্ত বিস্বস্ত কর্মচারী বলে উল্লেখ করলেও পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে ম্যানেজার দেবকীনন্দন মুখার্জীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

এই ঘটনার বেশ কয়েকদিন পর গতকাল সকালে গ্রামের পাশে একটি গাছে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় দেবকীনন্দনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়। মৃতদেহের ময়না তদন্তের পর গতকাল বিকালে মৃতদেহ গ্রামে ফিরতেই মৃতের পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবিতে পেট্রোল পাম্প মালিক গ্রামেরই বাসিন্দা লোপামুদ্রা মহাপাত্রর বাড়ির মূল দরজায় মৃতদেহ ফেলে রেখে মাকুড়গ্রাম বিষ্ণুপুর পথ অবরোধ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

মৃতের পরিবার ও স্থানীয়দের দাবি, সরাসরি না বললেও বিভিন্ন ভাবে তিন লক্ষ টাকা চুরির অপবাদ সইতে হচ্ছিল দেবকীনন্দন মুখার্জীকে। তা সহ্য করতে না পেরেই এই আত্মহত্যা। অবিলম্বে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ না দিলে পথ অবরোধ চালিয়ে যাওয়ার হুমকিও দেন গ্রামবাসীরা। রাতভর পেট্রোল পাম্পের মালিকের বাড়ির দরজায় মৃতদেহ ফেলে ও রাস্তা অবরোধ করে রাখার পর আজ সকালে পেট্রোল পাম্প মালিক মৃতের পরিবারকে চার লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের আস্বাস দিলে মৃতদেহ সরিয়ে নেওয়া হয়। তুলে নেওয়া হয় অবরোধও। বিষয়টি নিয়ে পেট্রোল পাম্প মালিকের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।