প্লাস্টিক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে চাঞ্চল্য

71

কলকাতা,১ ফেব্রুয়ারিঃ প্লাস্টিক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার ভোর ৪টে নাগাদ দক্ষিণ কলকাতার আনন্দপুরের একটি প্লাস্টিক কারখানায়। ওই ঘটনার খবর দেওয়া হয় দমকলকে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে দমকলের ১১টি ইঞ্জিন। প্রায় ৬ ঘন্টা ধরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ওই দমকল বাহিনী। 

জানা গিয়েছে, শনিবার সকাল ৭টা নাগাদ ই এম বাইপাস সংলগ্ন আনন্দপুরের চৌবাগা এলাকার একটি প্লাস্টিকের গুদাম থেকে প্রথমে ধোঁয়া বার হতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তা দেখেই তাঁরা বুঝতে পারেন যে ওই গুদামে আগুন লেগেছে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা খবর দেন দমকলকে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে দমকলের ১১টি ইঞ্জিন। প্রায় ৬ ঘণ্টার চেষ্টায় আয়ত্ত্বে আসে আগুন।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, বেআইনিভাবে ওই বাড়িটিকে গুদাম হিসাবে দীর্ঘদিন ধরে ব্যভার করা হচ্ছে। গোটা বাড়িটিতে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থাও সম্ভবত ছিল না বলেও তাঁদের দাবি।

প্রাথমিক ভাবে দমকলকর্মীদের অনুমান, শর্ট সার্কিট থেকেই আগুন লেগেছে ওই কারখানায়। কারখানায় দাহ্যবস্তু এবং রাসায়নিক মজুত থাকায় দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে। ভিতরে অগ্নি নির্বাপনের কোনও ব্যবস্থা নেই বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে।

দমকল কর্মীরা আরও জানান,গুদামে ঠেসে ঠেসে ভরা ছিল প্লাস্টিক ও রবারের মতো দাহ্য পদার্থের হরেক জিনিসপত্র। তার জেরেই আগুন দ্রুত ছড়িয়েছে। আগুন নিভে গেলেও বাড়িটির তাপ প্রচন্ড বেড়ে গিয়েছে। তাই এখন কুলিং প্রসেস চলছে।  তারপরেই ভেতরে যাওয়া সম্ভব হবে। তখনই আগুন লাগার কারণ বোঝা যাবে।

এরই মধ্যে আবার প্রচন্ড তাপে ওই গুদামবাড়ির দেওয়ালে যেমন বড় বড় ফাটল দেখা দিয়েছে ঠিক তেমনি তার পাশে থাকা একটি বহুতলেও ফাটল দেখা দিয়েছে। মূল গুদামটি যে কোনও মুহূর্তে ভেঙে পড়তে পারে। ভয় রয়েছে বহুতলটি নিয়েও। আশপাশের বাড়িগুলিও ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই পুলিশ এখন ক্ষতির আশঙ্কা খতিয়ে দেখছে।