জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ২, চাঞ্চল্য

219

তুষার কান্তি বিশ্বাস, উত্তর দিনাজপুরঃ জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ গুলিবিদ্ধ দুইজন। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া থানা অন্তর্গত গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ঝরাগাছ গ্রামে। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে দালুয়া স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয় ওখানে তাদের চিকিৎসা চলছে ঘটনার খবর পেয়ে চোপড়া থেকে বিশাল পুলিশবাহিনী এলাকাতে পৌঁছেছে গোটা ঘটনাকে নিয়ে পুলিশ তদন্ত করছে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে। যদিও এনিয়ে এখনও কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি।

জানা গেছে, চোপড়ার হকতিয়াগজ পঞ্চায়েত এলাকার ঝরাগজে ৬ বিঘা জমি রয়েছে আনোয়ার ইসলামের। অভিযোগ, সেই জমি বারবারই বিক্রির জন্য তাঁকে চাপ দিচ্ছিল স্থানীয় দালাল নজরুল ইসলাম। মাত্র ৫ লক্ষ টাকার বিনিময়ে ওই ৬ বিঘা কিনে নিতে চাইছিল নজরুল। কিন্তু জমি বিক্রি করতে নারাজ আনোয়ার। এনিয়ে নজরুল-আনোয়ারের মধ্যে চাপা উত্তেজনা চলছিলই। মাঝে মধ্যেই নজরুল তাঁকে হুমকি দিচ্ছিল বলেও অভিযোগ।

একটি জমিকে নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিবাদ চলতেছিল আজকেও ওই জমিকে নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে প্রথমে বর্ষা হয় তারপরে একপক্ষ চালানো গুলিতে দুইজন আহত হয়েছে তাদেরকে উদ্ধার করে দালুয়া স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয় ওখানে তাদের চিকিৎসা চলছে ঘটনার খবর পেয়ে চোপড়া থেকে বিশাল পুলিশবাহিনী এলাকাতে পৌঁছেছে গোটা ঘটনাকে নিয়ে পুলিশ তদন্ত করছে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানাচ্ছেন, সদলবলে আনোয়ারের ওই জমি দখল করতে যায় জমির দালাল নজরুল ইসলাম। খবর পেয়ে পালটা আনোয়ারও নিজের জমি বাঁচাতে সেখানে পৌঁছে যান। দু’পক্ষের মধ্যে বচসা শুরু হয়। জমি ছাড়তে একেবারেই নারাজ আনোয়ার। তাঁর এই অনড় মনোভাবে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে নজরুলের দলবল।

আচমকাই তারা গুলি চালাতে শুরু করে। গুলি গিয়ে লাগে আনোয়ারের পায়ে। তিনি এমনিতেই বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ব্যক্তি। তারউপর পায়ে গুলি লাগায় সেখানেই পড়ে যান। তাঁর সঙ্গীরা উদ্ধার করে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করান। সেখানেই চিকিৎসা চলছে তাঁর।

জখম আনোয়ারারে ভাইপো নুরুল হুদা অভিযোগ করেছেন,‘আমার কাকা নিজের জমি বাঁচাতে গিয়েছিলেন। তখনই নজরুল ইসলামের দলবল কাকাকে গুলি করে।’

চোপড়ার তৃণমূল বিধায়ক হামিদুর রহমানের দাবি, ‘আনোয়ার দলের সক্রিয় কর্মী। ও চা বাগানের একজন শ্রমিক। পায়ে সমস্যা আছে, বয়সও হয়েছে। কাজ তেমন করতে পারে না। জমির দালালরা ওকে যেভাবে আক্রমণ করল, তা নিন্দনীয়।’

ইসলামপুরের পুলিশ সুপার শচীন মক্কার বলেন, ‘একটা গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে বলে আমি শুনেছি। ওখানে পুলিশ গিয়েছে।’