খেলা হবে শ্লোগান দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী তথা সর্বভারতীয় সভাপতি রাজনাথ সিং এর মুখে

99

বালুরঘাট, ২৬ ফেব্রুয়ারিঃ এবার খেলা হবে শ্লোগান দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী তথা বিজেপির দুবারের সর্বভারতীয় সভাপতি রাজনাথ সিং এর মুখে।  বালুরঘাটে পরিবর্তন যাত্রায় অংশ নিতে দিল্লি থেকে আজই বালুরঘাটে উড়ে আসেন দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। যাত্রায় অংশ নেবার আগে বালুরঘাট হাইস্কুল ময়দানে এই পরিবর্তন যাত্রাকে কেন্দ্র করে এক জনসভায় উপস্থিত হয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী  রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে খেলা নিয়ে হুশিয়ারি দিয়ে বলেন হ্যা খেলা হবে।নিশ্চই খেলা হবে।বড় খেলাই হবে।  আমরাও খেলা খেলব। তবে সেই খেলা হবে উন্নয়নের শান্তির খেলা। 

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমন করে বিজেপির এই কেন্দ্রীয় নেতা  বলেন আপনি এই রাজ্যকে পুলিশি রাজত্বে পরিনত করে ফেলেছেন।  আপনি শাসক বনে গেছেন কিন্তু রাজ্য চালাতে গিয়ে শাসক নয় সেবক হতে হয়।

অহংকার করে  সরকার  চালানো যায় না বলেও প্রতিরক্ষামন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রীর নাম না করে হুশিয়ারি দেন।  তিনি উলটে  প্রশ্নের সুরে বলেন রাজনীতি কি কেবল সরকার গড়ার জন্য। পাশাপাশি দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর  জবাব আমরা বিজেপি  সরকার গড়ি দেশ ও সমাজ বানানোর জন্য।

দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী তার আধঘন্টার ভাষনে দফায় দফায় রাজ্যের তৃনমুল নেত্রীকে আক্রমন শানান কখনও  দুর্নীতি হিংসা,  তোলাবাজ,  কাটমানী নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনা করেন রাজনাথ সিং।

 তিনি তোলাবাজ প্রসংগ নিয়ে বলতে উঠে বলেন,  তোলাবাজ শব্দ  আমি অন্তত কখনও শুনিনি।  কাটমানি ।  এপ্রসংগেই তিনি এই রাজ্যের বিভিন্ন প্রকল্পে কেন্দ্রের পাঠানো  বরাদ্দের টাকা পাঠানো নিয়ে রাজ্যসরকারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলতে থাকেন।

এসব কারনেই ও প্রত্যেক বিজেপির সভায় যে পরিমান ভীড় দেখছেন তাতে তিনি নিশ্চিন্ত এবার রাজ্যের মানুষ মমতা ব্যানার্জী র যাওয়ার সময় হয়ে গেছে। এরপরেই তিনি জানান বিজেপি রাজ্যে  ক্ষমতায় আসলে সোনার বাংলা গড়বে। 

বেশ কিছুদিন ধরে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিপুরাতে বিজেপির শাসনকাল নিয়ে ওখানের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের বক্তব্য নিয়ে  সমালোচনা করেছিলেন।আজ বালুরঘাটের পরিবর্তন যাত্রার সভা থেকে তা পালটা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে ফিরিয়ে দিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী তথা বর্ষিয়ান বিজেপি নেতা  রাজনাথ সিং।

এমনিতে রাজ্য ও কেন্দ্রের রাজনৈতিক মহলে কান পাতলেই রাজনাথ সিং এর সাথে মমতা ব্যানার্জীর সুসম্পর্কের কথা শোনা যায়৷।  সেই রাজনাথ সিং এর মুখে আজ স্পষ্টতই মমতার সমালোচনা বার বার শোনা গেল।

একসময় তো তিনি মা মাটি মানুষ বলতে গিয়ে হেসে ফেলেন।  তারপর যোগ করেন  মা মাটি মানুষ কোনটাই এই রাজ্যে সুরক্ষিত নয়। বিজেপির সুশান দেখতে হলে আপনারা বলেনজেপি শাসিত ত্রিপুরাতে যান।

রাজনাথ সিং মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীকে আক্রমন করে বলেন এই রাজ্যে শুধু হিংসা রাজ চলছে আমাদের ১৩০ কর্মকর্তাকে  খুন  হয়েছে। দিদি আপনাকে প্রশ্ন করছি রাজ্যের ল এন্ড ওরডার রক্ষার দায় কার। আমিও উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ছিলাম। তাই আমি বলছি আপনি ও বাম মিলে এই রাজ্যকে ৪৪ বছর ধরে শাসন করে দেশের অন্য রাজ্যের উন্নয়ন থেকে পিছিয়ে দিয়েছেন।  আমরা ক্ষমতায় এসে  এই রাজ্যকে ২১ শতবাদীর উন্নয়নের ছোয়ায় ভরিয়ে তুলব।

আজকের সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাজনাথ সিং দু একবার বাংলায় কথা বলেন। পাশাপাশি বাংলার মনিষি  রবীন্দ্রনাথ,  বিবেকানন্দ,  অরবিন্দ ও তাদের দলের প্রতিষ্ঠাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জীর কথা যেমন বলেন। তেমনি বিজেপি ক্ষমতায় এলে রাজ্যের উন্নয়নের ব্যাপারে সব রকমদেশের প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প গুলি রুপায়ন করে এই বাংলাকে সোনার বাংলা গড়ার প্রতিশ্রুতি দেন বিজেপির এই সর্বভারতীয় নেতা রাজনাথ সিং।

আজ  দুপুর সাড়ে বারোটা নাগাদ দিল্লি থেকে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বালুরঘাটে আসেন।  সার্কিট হাউসে বিশ্রাম নিয়ে বেলা সাড়ে তিনটে নাগাদ সভা মঞ্চে আসেন তিনি। তার আগে একে একে মঞ্চে এসে বক্তব্য রাখেন সায়ন্তন বসু, দেবশ্রী চৌধুরী,  দীলিপ ঘোষেরা।

সভা শেষ করে সামান্য কিছুক্ষন পরিবর্তন যাত্রায় অংশ নিয়ে দিল্লি ফিরে যাওয়ার জন্য বালুরঘাট বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রওনা হয়ে যান।তবে পরিবর্তন যাত্রায় অংশ নেবার আগে শহরের হিলি মোরে বিবেকানন্দর মুর্তিতে মাল্যদান করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী।  আজকের সভায় প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সভায় যোগ দিতে প্রচুর মানুষ এসেছিলেন।