রমজান মাসের আগে পৌরসভা ভোট চায় রাজ্য সরকার

222

ওয়েব ডেস্ক, ৭ জানুয়ারিঃ ২০২০ সালের এপ্রিল মাসের শেষদিকে শুরু হয়ে যাবে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের পবিত্র রমজান মাস। আবার ওই রমজান মাসেরই মাঝের অংশে রয়েছে বাংলা নববর্ষ। আর সেই মাসে পৌরসভা ভোট চান না রাজ্য সরকার।

নবান্ন সুত্রে জানা গেছে, এই দুই কারণের জন্য এপ্রিল মাসে পুরভোট চান না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই রাজ্যে অনুষ্ঠিত হতে চলে পুরনির্বাচন এপ্রিল মাসের প্রথম দিকেই ২ বা ৩ দফায় হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। উল্লেখ্য এই নির্বাচন সংঘঠিত হবে কলকাতা সহ ১১২টি পুরসভা এলাকায়।  

তৃণমূল সুত্রে জানা গেছে, ইসলামিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী চলতি বছরের ২৪ অথবা ২৫ এপ্রিল নাগাদ রমজান শুরু হবে। যা চলবে পুরো একমাস। আর সেই কারনে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রমজান চলাকালীন ভোট করতে নারাজ।  আবার মে-জুন মাসে প্রচন্ড গরমে প্রচার চালানো খুবই কঠিন হয়ে পড়ে। আবার তার পরে বর্ষা এসে যাবে। তখন ভোট করতেও সমস্যা। তাই মুখ্যমন্ত্রী চাইছেন রমজান মাস শুরুর আগেই সম্পন্ন হয়ে যাক পুরভোটের পুরো প্রক্রিয়া। তাই রাজ্য সরকার চাইছে এপ্রিল মাসের শুরুতেই হয়ে যাক সেই ভোট। আর বাংলা নববর্ষের আগেই ঘোষিত হয়ে যাক সেই ভোটের ফলাফল।

নবান্ন সুত্রে খবর, মুখ্যমন্ত্রী চান কলকাতা পুরসভায় একদিন ও বাদবাকি পুরসভায় অন্যদিন ভোট হোক। যদিও ভিন্ন মত রাজ্য নির্বাচন প্রশাসন। তাঁদের ইচ্ছা ভোট হোক ৩দফায়। প্রথম দফায় কলকাতার সঙ্গে ভোট হোক উত্তরবঙ্গের পুরসভাগুলিতে। দ্বিতীয় দফায় ভোট হোক দুই ২৪ পরগনা ও হুগলি জেলার পুরসভা এলাকাগুলিতে। বাদবাকি পুরসভায় ভোট হোক তৃতীয় দফায়। যদিও এখনও কিছু চূড়ান্ত হয়নি।

এখন দেখার বিষয় ভোটের দিনক্ষণ নিয়ে রাজ্য সরকার ও রাজ্য নির্বাচন কমিশন একমত হলেও কয় দফায় ভোট হবে তা নিয়ে একমত হতে পারে কিনা! সেই সঙ্গে এটাও দেখার বিষয় ভোট গ্রহণের জন্য ইভিএম নাকি ব্যালট পেপার কোন মাধ্যমকে বেছে নেয় রাজ্য নির্বাচন কমিশন। কারণ দলগত ভাবে যে তৃণমূল ইভিএমের পক্ষে নয় সেটা ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের পরেই ২১ জানুয়ারির সমাবেশে পরিস্কার করে দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো।