তৃণমূল বিজেপির সংঘর্ষে উত্তেজনা কোচবিহারের পাটাকুঁড়া এলাকায়

1317

কোচবিহার, ২৩ ডিসেম্বরঃ রাজনৈতিক অশান্তির ছোঁয়া এবার কোচবিহার শহরেও। তৃণমূল বিজেপির সংঘর্ষের উতপ্ত হল কোচবিহার শহরের পাটাকুঁড়া এলাকা। অভিযোগ ১৬ নং ওয়ার্ডের ওই এলাকায় বিজেপির একটি দলীয় শাঁখা কার্যালয়ে হামলা চালায় তৃণমূলের কিছু কর্মী সমর্থক। এরপর ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। বিজেপির পক্ষ থেকে তাঁদের দলীয় কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ এনে নদীর ঘাট অবরোধ করা হয়।

এরপরেই তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। দুপুর গড়িয়ে বিকেলের এই উত্তেজনা তুমুল আকার ধারণ করে। দুই পক্ষের গোলমালে ভাঙচুর হয় বেশ কিছু দোকান, একটি টোটা গাড়িও। শহরের ফাঁসির ঘাট, রানিবাগান প্রভৃতি এলাকায় এই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে মানুষ আতঙ্ক গ্রস্থ হয়ে পরে। বেশ কিছুক্ষনের জন্য বন্ধ হয়ে যায় তোর্সা নদী পারাপারের অস্থায়ী বাঁশের সেতু। বাঁধের রাস্তাটিও বন্ধ থাকে।

বিজেপি নেতা বিরাজ বোস জানিয়েছেন, এদিন কোচবিহার শহরে তৃণমূলের একটি কর্মসূচী ছিল। সেখানে যোগ দিতে আসা বেশ কিছু তৃণমূল কর্মী ফাঁসিরঘাট এলাকার বাঁধের পারে আমাদের দলীয় শাঁখা কার্যালয়ে হামলা চালায়। এই ঘটনার প্রতিবাদ করে বিজেপি কর্মীরা ঘাট অবরোধ করলে তৃণমূলের কর্মীরা বোমা, বন্দুক পিস্তল, নিয়ে আমাদের কর্মীদের উপর ঝাঁপিয়ে পরে। তারা বিজেপি কর্মী বাদেও সাধারণ মানুষের দোকান, বাড়ি, গাড়ির উপর হামলা করে। এরা নদীর ওপার থেকে এসে এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

অন্যদিকে এই ঘটনার সাথে তৃণমূল কোন ভাবেই যুক্ত নয় বলে জানান তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি বিষ্ণুব্রত বর্মণ। তিনি বলেন, বিজেপি তাঁর পায়ের তলার মাটি হারিয়ে নিজেরাই গোলমাল করে তৃণমূলের উপর দোষ দিচ্ছে। এটা মানুষের কাছ থেকে এক ধরণের  সহানুভূতি আদায়ের চেষ্টা।