নিজের বিয়ে বন্ধ করে নজীর গড়ল নাবালিকা

92

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর২৪পরগনাঃ নিজের বিয়ে আটকে আবারও সাহসিকতার নজির গড়ল সদ্য এক নারালিকা। ঘটনাটি ঘটেছে,শনিবার হাসনাবাদ থানার আশারিয়া গ্রামে।

এদিন সকালে  হঠাৎ একটি ফোন যায় হাসনাবাদ চাইল্ড লাইনের আধিকারিকের কাছে। ওই মেয়েটির বাবা-মা আমাকে জোর করে তাঁকে বিয়ে দিয়ে দিচ্ছিল বলে অভিযোগ। মেয়েটির কাঁতর আবেদনে সাড়া দিয়ে সেখানে ছুটে আসেন হাসনাবাদের চাইল্ড লাইনের অধিকারিক কুদ্দুস গাজী, হাসনাবাদ বিডিও সাহেব অরিন্দম মুখার্জী ও হাসনাবাদ থানার পুলিশ আদিকারিকরা।

ফোন পাওয়ার পরই সেখানে ছুটে যান আধিকারিকরা। তাঁরা সেখানে গিয়ে দেখেন  মেয়েটির বাড়িতে বিয়ের তোড়জোড় চলছে। এদিন হঠাৎ আধিকারিকদের হাজির দেখে হতবাক  হয়ে পড়েন বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত আত্মীয়স্বজন  থেকে শুরু করে সবাই। এদিন তাঁরা মেয়ের বাড়ির লোকজনেদের আশ্বস্ত করেন এবং ১৮ বছরের নিচে  মেয়ের যাতে বিয়ে না দেন তাও জানিয়ে দেন।

এবিষয়ে পরিবারের তরফে দাবী করা হয়, আমরা গরিব মানুষ, ভালো পাত্র পেয়েছি তাই বিয়ে দিচ্ছিলাম। তারপর সকলেই মিলে মেয়ের পরিবারের বোঝানো হলে অবশেষে তাঁরা রাজি হয়ে যায় এবং তাঁরা শপথ নেয় ১৮ বছর না হলে মেয়েকে  বিয়ে দেবে না । এরপরই মেয়ে এবং বাবাকে হাসনাবাদ থানায় নিয়ে আসা হয়।

জানা গেছে, ওই নাবালিকার বাড়ি বসিরহাটের মহাকুমায় মাটিয়া থানার  অন্তর্গত কুলটি গ্রামে। ওই নাবালিকা মেয়েকে হাসনাবাদে আশারিয়া গ্রামে মেয়ের মামাবাড়ি থেকে বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। বিয়ের কথা জানাজানি হতেই ঘটে বিপত্তি। এরকম সাহসিকতার সাথে বিয়ে বন্ধ করার জন্য তাঁকে ভূয়সী প্রশংসার জন্য তাঁকে সন্মানও জানানো হয়।