এবার বঙ্গরত্ন সম্মানে ভূষিত হতে চলেছেন ভারতী ঘোষ

1013

ওয়েব ডেস্ক, ১৯ জানুয়ারিঃ ভারতী ঘোষকে বঙ্গরত্ম সম্মান দিচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। চিরাচরিত ধারা বজায় রেখে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন মা-মাটি-মানুষের সরকার দৃষ্টান্তমূলক আরও একটি পদক্ষেপ নিতে চলেছে। সংস্কৃতি জগতের অনেক মানুষই এতদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের কাছে থেকে জীবনকৃতি সম্মান পেয়েছেন। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হচ্ছে ভারতীর নাম। ১৯৬৮ সাল থেকে ২০১৯, টানা ৫১ বছর ধরে টেনিস ব্যাট হাতে লড়ে চলেছেন টেবিল টেনিসের রানি ভারতী ঘোষ। ৭৫ বছর পার করলেও ক্রীড়াপ্রেমী অনেক মানুষ তাঁকে টেবিল টেনিসের রানিই বলেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৬৮ সাল থেকে ২০১৯, টানা ৫১ বছর ধরে টেনিস ব্যাট হাতে লড়ে চলেছেন টেবিল টেনিসের রানি ভারতী ঘোষ। ৭৫ বছর পার করলেও ক্রীড়াপ্রেমী অনেক মানুষ তাঁকে টেবিল টেনিসের রানিই বলেন। এই ৫১ বছরে দেশকে বহু কৃতি টেবিল টেনিস খেলোয়াড় উপহার দিয়েছেন। এর মধ্যে অর্জুন পাওয়া মান্তু ঘোষের নাম সবার আগে উল্লেখ করতে হয়। এছাড়াও শুভজিৎ সাহা, গণেশ কুণ্ডু, সুব্রত রায়, সঞ্জয় দে, প্রসেনজিৎ বসুর মতো জাতীয়স্তরের টেবলি টেনিস খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন ভারতীদেবীই।

জানা গেছে, উত্তরবঙ্গের টেবিল টেনিসকে তিনি খ্যাতির শিখরে তুলে ধরেছিলেন। তিনি জাতীয় স্তরে বহু টেনিস খেলোয়াড় উপহার দিয়েছেন। টেবিল টেনিসকেই তিনি নিজের সংসার ভেবে সেবা করে চলেছেন। তাঁর হাত ধরে উঠে আসা খেলোয়াড়রাই তাঁর কাছে সন্তানতুল্য। বয়সের ভারও তাঁকে দমিয়ে দিতে পারেনি এই টেবল টেনিস প্রেম থেকে।

ভারতীদেবী বলেন, টেবিল টেনিসই তাঁর একমাত্র সংসার। সন্তান হল বহু টেনিস শিক্ষার্থী। এই খেলাকে তিনি এতটাই ভালোবাসেন যে এর জন্য বিয়ে পর্যন্ত করেননি। বঙ্গরত্ন সম্মানের কথা শুনে তিনি জানান,”আমার এখনও বিশ্বাস হচ্ছে না”। বয়েসের ভারে ঝুঁকে গেলেও এখনও টেবিল টেনিস থেকে সরে যাননি। নতুন প্রজন্মকে শিখিয়ে চলেছেন হাতে ধরে। বর্তমানে ভারতী ঘোষ দেশবন্ধু এবং সায়গল ক্লাবে খেলা শেখান। শিশুদের পাশাপাশি তিনি প্রতিবন্ধী এবং বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদেরও খেলা শেখান। ভারতী ঘোষের কথায়, ‘পুরস্কার পাব বলে টেবিল টেনিস শেখাই না। এটা ভালো লাগে তাই।’