যারা প্রিয়াঙ্কার পোশাক নিয়ে সমালোচনা করছেন, তাঁরা ১০ মিনিট ওইরকম ড্রেস পরে বেরোক, প্রিয়াঙ্কার সমর্থনে হিনা

224

ওয়েব ডেস্ক, ৬ ফেব্রুয়ারিঃ গ্র্যামি ২০২০ এই নিয়েই সর্বত্র চর্চা চলছেই সব থেকে বড় চর্চা প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে নিয়ে।  সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত বি-টাউনের গসিপের মধ্যমণি প্রিয়াঙ্কার খোলা গাউন। প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, বলিউডের দেশি গার্ল। এখন বিবাহসূত্রে বিদেশে থাকলেও মনে মনে কিন্তু তিনি খাঁটি ভারতীয়। কিন্তু ওয়েস্টার্ন পোশাক পড়ার জন্য প্রায়ই নানা সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে। সম্প্রতি ৬২তম গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডসে একটি নেকলাইন পোশাক পড়ে এসেছিলেন প্রিয়াঙ্কা। তার জন্য একদিকে যেমন প্রশংসা কুড়িয়েছেন পিগি আবার অপরদিকে ঘোরতর সমালোচনারও সম্মুখীন হয়েছেন।

প্রিয়াঙ্কার সমর্থনে অনেকেই এগিয়ে এসেছেন। মুখ খুলেছেন তাঁর মা মধু চোপড়া। এটা তাঁর নিজের জীবন, তাই নিজের ইচ্ছামতোই পোশাক পরতে পারেন প্রিয়াঙ্কা, এমনটাই মন্তব্য করেন মধু। এবার প্রিয়াঙ্কাকে সমর্থন করে সরব হলেন আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রী হিনা খান। সম্প্রতি তাঁকে প্রিয়াঙ্কার গ্র্যামি পোশাকের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, “কেউ যদি নিজের পোশাক নিয়ে খুশি থাকে তাহলে তাঁকে বিচার করার আমরা কে? আমি বহুবার বলেছি এই ধরনের পোশাক পরা একেবারেই সহজ নয়। অন্য কেউ ১০ মিনিটও এই পোশাক পরতে পারবেন না। এটা এমন কোনও পোশাক নয় যা পরে ইচ্ছামতো পোজ দেওয়া যায়। এটা পরার জন্য আভিজাত্য, সাহস লাগে।”

একটি সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানান, “যারা প্রিয়াঙ্কার পোশাক নিয়ে সমালোচনা করছেন, তাঁরা কমপক্ষে ১০ মিনিট ওইরকম ড্রেস পরে রাস্তায় বেরোক, অবস্থা খারাপ হয়ে যাবে। সাধারণ পোশাক পরলে লোকজনের সমস্যা হয়, কিন্তু ওই ধরনের পোশাক পরে কোনও অনুষ্ঠানে ঘন্টার পর ঘন্টা কাটানো অত্যন্ত কঠিন বিষয়। এর জন্য প্রিয়াঙ্কাকে আমার তরফ থেকে কুর্নিশ”।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরে মুক্তি পেতে চলেছে হিনা খানের আপকামিং ছবি ‘হ্যাকড’। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে তার ট্রেলার। যা ইতিমধ্যেই বেশ সাড়া ফেলেছে নেটদুনিয়ায়। মুখ্য ভূমিকায় হিনা ছাড়াও অভিনয় করেছেন রোহন শাহ। পরিচালনায় বিক্রম ভাট। ছবিটি মুক্তি পাবে ৭ ফেব্রুয়ারি।