তৃণমূল যুবনেতার বিরুদ্ধে হুমকির অভিযোগ, ক্লাস বয়কট করে অবস্থান অধ্যাপকদের

19

কোচবিহার, ২৭ সেপ্টেম্বরঃ কলেজের নবীন বরন উৎসবকে কেন্দ্র করে বহিরাগত এক যুব নেতার বিরুদ্ধে কলেজের অধ্যাপককে হুমকির অভিযোগ উঠল। এই অভিযোগের ভিত্তিতে শুক্রবার ক্লাস বয়কট করে বিক্ষোভ দেখাল অধ্যাপকেরা। ঘটনাটি ঘটেছে কোচবিহার কলেজে। এদিনের এই অবস্থান বিক্ষোভে ৩০ জন স্থায়ী অধ্যাপক সহ মোট ৮৮ জন ছিলেন বলে আন্দোলনকারীদের পক্ষে জানানো হয়।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর ওই কলেজে নবীন বরন উৎসবের আয়োজন হয়। সেই উৎসব শুরু করার সময় ওই যুব নেতার সাথে মহাবিদ্যালয়ের এক অধ্যাপকের তুমুল বিতণ্ডা বাঁধে। এই সময় জয়দেব মণ্ডল নামে ওই অধ্যাপককে তৃণমূলের যুবনেতা অভিজিৎ দে ভৌমিক অশ্লীল ভাষায় হুমকি দেয় বলে অভিযোগ। এই অভিযোগের ভিত্তিতেই  অধ্যাপকদের এই আন্দোলন। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে ওই যুবনেতা।

এ প্রসঙ্গে ছাত্র আন্দোলনের প্রাক্তন নেতা তথা তৃণমূল কংগ্রেসের যুবনেতা অভিজিৎ দে ভৌমিক বলেন, কলেজের নবীন বরন উৎসবে আমি আমন্ত্রিত হিসাবে গিয়েছিলাম। আমার সাথে কিছু বিষয় নিয়ে জয়দেব বাবুর কথোপকথন হয় কিন্তু তাকে কষ্ট দেবার মতো কোনও কথাই আমি বলিনি। তবুও যদি তিনি আমার কোনও কথায় দুঃখ পেয়ে থাকেন তার জন্য আমি আন্তরিক ভাবে দুঃখিত। বিজেপিকে খুশি করতে এবং তৃণমূলের গায়ে কালি ছেটাতে জয়দেব বাবুকে দিয়ে আমার বিরুদ্ধে বলানো হচ্ছে।

যদিও জয়দেব বাবুর দাবী কলেজের মধ্যে দুটি ছাত্র সংগঠন সক্রিয় রয়েছে। একটি অখিল ভারত বিদ্যার্থী পরিষদ, অপরটি তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। অনুষ্ঠান পরিচালনার ক্ষেত্রে দুই সংগঠনের সমতা বজায় রেখে শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য আমি কিছু কথা বলতে গেলে উনি আমাকে অশ্লীল ভাষায় আক্রমণ করে।

এবিষয়ে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পঙ্কজ কুমার দেবনাথ বলেন, নবীনবরনকে কেন্দ্র করে কলেজে যাতে কোন অশান্তি না ছড়ায় সেইকারনে আমরা ব্যানারহীন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলাম, তবুও দুর্ভাগ্যবশত আমরা বিতণ্ডা রুখতে পারিনি। আগামিদিনে যাতে কোন রকম অশান্তি না হয় সেদিকে আরও বেশি নজর দেওয়া হবে।