টালা ব্রিজে পরিবহণ বন্ধ, ৯ রুটের বন্ধ ৩০০ বাস বিপাকে নিত্যযাত্রীরা

60

কলকাতা, ১৪ অক্টোবরঃ মেরামতির জন্য টালা ব্রিজে পরিবহণ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যার জেরে পুজোর ঠিক মুখেই বিপাকে পড়েছেন নিত্যযাত্রীরা। তার উপর চিন্তা বাড়িয়েছে বেশ কয়েকটি বাসের বন্ধ হয়ে যাওয়ার খবর। কারণ, বাস ঘুরপথে যাওয়ায় বেড়েছে তেলের খরচ। কিন্তু ভাড়া বাড়েনি। ফলে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে বেশ কয়েকটি রুটের বাস মালিকরা। তাই আপাতত ৯টি রুটের ৩০০ বাস সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর, এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে আগামী বুধবার বাস মালিক সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকে বসবে পরিবহণ দফতর।

জানা গেছে, টালা ব্রিজ বন্ধের জেরে ঘুরপথে যেতে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে বেশ কয়েকটি বাস সংস্থা। অন্তত ৯টি বাস সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ৩৪ বি, ৩৪ সি, ৭৮, ২০১, ২০২, ২১৪, ২২২, ৩২এ এবং এস-১৮৫–এই কয়েকটি বাসরুট আপাতত বন্ধ থাকবে। এর মধ্যে বেশিরভাগই বারাকপুর, সোদপুর, কামারহাটি থেকে ধর্মতলাগামী।

অর্থাৎ বিটি রোড হয়ে টালা ব্রিজ বা হেমন্ত সেতু ধরেই সোজা ধর্মতলায় পৌঁছনোই সাধারণ রুট এসব বাসের। এটি বন্ধ হয়ে গেলে, বেশ অনেকটা ঘুরপথেই গন্তব্যে পৌঁছতে হবে। ফলে তেলের খরচও বেড়েছে। কিন্তু যাত্রীভাড়া সেভাবে বাড়ানো যায়নি। তাই প্রতিদিন আয়-ব্যয়ের হিসেব মেলাতে গিয়ে হিমশিম দশা বাস মালিকরদের। বড়সড় আর্থিক ক্ষতির মুখে তাঁরা পড়ছেন বলে জানিয়েছেন। সমস্যা হচ্ছে বাস চালক, কন্ডাক্টরদেরও।

সোমবার সকালে এভাবে আচমকা বাস বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চিন্তার ভাঁজ পড়েছে যাত্রীদের কপালে। চিড়িয়ামোড় থেকে সিঁথির মোড়, বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন বহু মানুষ। লম্বা লাইন চোখে পড়েছে ডানলপ ব্রিজের নীচে। একই অবস্থা পাইকপাড়ার মুখেও। অটোর অস্থায়ী রুট চালু হলেও পর্যাপ্ত অটো না থাকায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে সাধারণ মানুষ। ফলে কয়েকগুণ টাকা খরচ করেও সঠিক সময়ে গন্তব্যে পৌঁছতে কার্যত কালঘাম ছুটছে নিত্যযাত্রীদের।