দিনহাটা,২২ সেপ্টেম্বর:ফের তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত দিনহাটা। ওই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। রবিবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে মাতালহাট গ্রাম পঞ্চায়েতের লক্ষ্মীর বাজার সংলগ্ন এলাকায়। ওই ঘটনায় তিনটি বাইক ও একটি দোকান ভাংচুরের হয় বলে জানা গিয়েছে।

ওই ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে দিনহাটা থানার পুলিশ। পরে পুলিশ গিয়ে এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ঘটনায় উত্তেজনা থাকায় ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয় পুলিশ। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ভাংচুর করা বাইক তিনটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। ওই ঘটনায় স্থানীয় বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

তৃণমূল কংগ্রেসের অভিযোগ, রবিবার বিকেলে টাইগার বর্মন, মিঠুন বর্মন ও বিশ্বজিৎ শর্মা নামে তৃণমূল কর্মী বাইক নিয়ে দিনহাটা থেকে লক্ষ্মীর বাজার দিকে যাওয়ার সময় বিজেপির কিছু দুষ্কৃতী তাদের উপর হামলা করে। যদিও ওই তৃণমূল কর্মীরা বাইক ছেড়ে পালিয়ে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। তখন বিজেপি কর্মীরা ওই বাইক তিনটিকে ভাংচুর করে বলে অভিযোগ। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব।


এ বিষয়ে দিনহাটা ১নং ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি তথা জেলা পরিষদের কর্মাধক্ষ নুর আলম হোসেন বলেন, আজ বিকেলে তিনজন তৃণমূল কর্মী টাইগার বর্মন,মিঠুন বর্মন ও বিশ্বজিৎ শর্মা দিনহাটা থেকে বাড়ি ফিরছে বাড়ি থেকে ফিরছিলেন সেই সময় লক্ষ্মীবাজার এলাকায় তৃণমূলের চিত্র কিছু দুষ্কৃতী আমাদের ওই কর্মীর উপর হামলা চালায় এবং তিনটি বাইক ভাঙচুর করে। মানুষ বিজেপির প্রতি মোহ ভঙ্গ হয়েছে তাই তাদের পিছন থেকে মানুষ সরে যাচ্ছে।তাই এলাকায় একটা সন্ত্রাসীর পরিবেশ তৈরি করার জন্য বিজেপি চেষ্টা করছে।

স্থানীয় বিজেপি নেতা অনন্ত বর্মন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আজকেই ওই ঘটনার সাথে বিজেপির কোন সম্পর্ক নেই। তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে ফলে ওই সংঘর্ষ হয়।