মোবাইল টাওয়ার বসানোকে কেন্দ্র করে পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীদের ধস্তাধস্তি, লাঠিচার্জ

223

তুষার কান্তি বিশ্বাস, উত্তর দিনাজপুরঃ মোবাইল টাওয়ার বসানোকে কেন্দ্র করে পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসিদের ধস্তাধস্তি। গ্রামবাসিদের অভিযোগ, টাওয়ার কোম্পানীর হয়ে পুলিশ বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মহিলা এবং পুরুষদের মারধার করেছে। পুলিশের এই অত্যাচারের প্রতিবাদ করতেই তাদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। ঘটনাটি কালিয়াগঞ্জ থানার ধনকৈল গ্রামপঞ্চায়েতের লাক্ষ্মীপুর গ্রামে। কালিয়াগঞ্জ থানার আই সি জানিয়েছেন, পুলিশ কাউকে মারধোর করে নি। টাওয়ার কোম্পানীর কাছে বৈধ কাগজপত্র থাকা সত্বেও শুধুমাত্র আতঙ্কে গ্রামবাসিরা কাজে বাধা দিচ্ছে।

কালিয়াগঞ্জ থানার লক্ষ্মীপুর গ্রামে মাধব বর্মনের জমিতে মোবাইল টাওয়ার বসানোর কাজ শুরু হতেই গ্রামবাসিরা প্রতিবাদে সোচ্চার হন। গ্রামবাসিরা টাওয়ারের কাজ বন্ধ করে রাস্তা অবরোধ করেছিল। এই আন্দোলনেও কাজ বন্ধ হয় নি।বাধ্য হয়েই গ্রামবাসিরা আদালতের দ্বারস্থ হন। আদালতে বিষয়টি বিচারধীন। তারই মধ্যে আজ টাওয়ার কোম্পানী পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে টাওয়ারের কাজ করতে গেলে গ্রামবাসিরা তাদের বাধা দেন। অভিযোগ পুলিশ আন্দোলনকারিদের বাড়িতে বাড়িতে ঢুকে লাঠি চার্জ করে। এলাকার মহিলারা পুলিশের এই অত্যাচারের প্রতিবাদে সোচ্চার হয়। তারা পুলিশের লাঠি কেড়ে নিতে গেলে পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসিদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। পুলিশী ঘেরাটোপের মধ্যেই মোবাইল টাওয়ারের কাজ চলে।

জমির মালিকের দাবি, যারা টাওয়ার করতে বাধা দিচ্ছেন তারা এলাকার কেউ নন।আগে বাধা দিলে তারা জমিতে টাওয়ার বসানোর অনুমতিই দিতেন না।

আন্দোলনকারিদের অভিযোগ, পুলিশ গ্রামবাসিদের সমস্যার দিকে গুরুত্ব না দিয়ে টাওয়ার কোম্পানী পক্ষ নিয়ে তাদের উপর লাঠি চার্জ করেছে। লাঠির আঘাতে কয়েকজন গ্রামবাসি সামান্য আহত হয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে, পুলিশের লাঠিচার্জের অভিযোগ মিথ্যা। টাওয়ার কোম্পানীর কাছে বৈধ কাগজপত্র থাকায় তারা টাওয়ার তৈরীর কাজে সহায়তা করছেন।