“পাকিস্তানের সঙ্গে কথা বলতেই পারি, কিন্তু টেররিস্তানের সঙ্গে কথা নয়”: বিদেশমন্ত্রী

16

ওয়েব ডেস্ক, ২৬ সেপ্টেম্বরঃ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পর এবার সেই আমেরিকাতেই পাকিস্তানকে একহাত নিলেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। নিউ ইয়র্কে ভারত, জাপান, জার্মানি ও ব্রাজিলের বিদেশমন্ত্রীদের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জয়শঙ্কর। সেখানে তিনি বলেন, পাকিস্তানের সঙ্গে কথা বলতে কোনও সমস্যা নেই, কিন্তু “টেররিস্তান”-এর সঙ্গে কথা বলতে ইচ্ছুক নই।

বিদেশমন্ত্রী বলেন, ‘ইসলামাবাদ কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে বেশি ভাবতে ভাবতে নিজেদের দেশকে রীতিমতো সন্ত্রাসবাদের আঁতুড়ঘর তৈরি করে ফেলেছে।’ নিউইয়র্কে আন্তর্জাতিক মঞ্চে দাঁড়িয়ে পাকিস্তানকে এমন কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। মূলত জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা রদ করে সেখানকার বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করার পর থেকে দুই দেশের সম্পর্ক আরও তলানিতে ঠেকেছে। বিদেশমন্ত্রী আরও বলেন, পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনায় ভারতের কোনও আপত্তি নেই। ‘তবে টেরোরিস্তানের সঙ্গে কথা বলতে আমাদের আপত্তি আছে। ফলে তাদের এর মধ্যে যে কোনও একটা হতে হবে।’ যার অর্থ দাঁড়ায়, সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ বন্ধ না করলে পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনা যে সম্ভব নয় তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন বিদেশমন্ত্রী।

জয়শঙ্কর বলেন,৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পর পাকিস্তান এবং চিন প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। কিন্তু এই দুই দেশের অ্যাজেন্ডা ভিন্ন। পাকিস্তানের কাছে শুধু কাশ্মীর নিয়ে সমস্যা নয়, বৃহত্তর লক্ষ্যে কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, শুধুমাত্র ভারতের জন্যই তৈরি করা হয়েছে জঙ্গি সংগঠনগুলো। জম্মু-কাশ্মীর প্রসঙ্গে জয়শঙ্কর বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে উন্নয়ন, কর্মসংস্থানের ব্যাঘাত ঘটায় বিচ্ছিন্ন পরিবেশ তৈরি হয়েছে জম্মু-কাশ্মীরে। আর সেটাকেই কাজে লাগাচ্ছে পাকিস্তান।