এনআরসি হবে কি হবে না,তা দেখা যাবে ভবিষ্যতেঃ দিলীপ ঘোষ

281

ওয়েব ডেস্ক, ২৫ ডিসেম্বরঃ এক সময় যিনি এন আর সি করে ২ কোটি অনুপ্রবেশকারীকে চিহ্নিত করার কথা বলেছিলেন। এখন তিনি এনআরসি নিয়ে কার্যত উল্টো সুরে গাইছেন। তিনি আর কেউ নন, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

বুধবার সকালে উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়িতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে দিলীপবাবু জানান, এনআরসি হবে কি হবে না, তা দেখা যাবে ভবিষ্যতে। আদালতের নির্দেশেই এনআরসি লাগু হয়েছিল অসমে। আদালত বললে তবেই তা দেশজুড়ে লাগু হবে।

এনআরসি ও ক্যা-এর ঘোষণার পর দেশ জুড়ে শুরু হয় আন্দোলন। সেই আন্দোলনের জেরে রাজ্যে রাজ্যে ধাক্কা খেয়ে এবার টনক নড়ছে বিজেপি নেতাদের। কিছুদিন আগেও অমিত শাহকে জোর গলায় বলতে শোনা গিয়েছে, ‘দেশ জুড়ে এনআরসি হবেই। এরপর পাশ হয় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন। ওই আইন পাশের পরেই দেশ জুড়ে  তীব্র আন্দোলন শুরু হয়। জায়গায় জায়গায় হয় বিক্ষোভ। এরপর রামলীলা ময়দানে প্রধানমন্ত্রীর গলায় শোনা যায় ভিন্ন সুর। প্রথমে রামলীলা ময়দানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, এনআরসি নিয়ে কোন আলোচনা হয়নি।

মোদীর বক্তব্যের পর থেকেই অমিত শাহের সঙ্গে তাঁর বক্তব্যের পার্থক্য নিয়ে প্রশ্ন তোলেন অনেকে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও ট্যুইট করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী আর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কথার কোনও মিল নেই। এরপরই এই প্রসঙ্গে ব্যাখ্যা দেন অমিত শাহ। মঙ্গলবার একটি সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী ঠিকই বলেছেন। দেশজুড়ে এনআরসি নিয়ে এখনও কোনও আলোচনা হয়নি”।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের পর এবার বাংলার বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের  গলাতেও শোনা গেল ভিন্ন সুর। রাজনৈতিক মহলের ধারনা, দেশ জুড়ে এন আর সি ও ক্যার বিরুদ্ধে আন্দোলন হওয়ার জেরেই কেন্দ্রীয় সরকারের ক্ষমতায় থাকা বিজেপি নেতৃত্বের বক্তব্য এমন পরিবর্তন।