পুলিশ কেন তৃণমূলকেই ধরছে বেছে বেছে ডেবরারপ্রশাসনিক বৈঠকে পুলিশকে তোপ মুখ্যমন্ত্রীর

21

কার্ত্তিক গুহ, পশ্চিম মেদিনীপুর: ডেবরার প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করলেন, বেছে বেছে তৃণমূল সমর্থকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হচ্ছে৷ শাসকদলের কর্মীদের হেনস্তা করা হচ্ছে৷ কিন্তু বিরোধী দলের অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না৷একে একে পুলিশ কর্তা-সহ প্রশাসনিক আধিকারিকদের দাঁড় করিয়ে কড়া বকুনি দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

হাতে তালিকা নিয়ে মঙ্গলবার পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম জেলার যৌথ প্রশাসনিক বৈঠকে বললেন, হাজার হাজার অভিযোগ আসছে। রাস্তাঘাট, হাসপাতাল এসব তো আছেই। আইনশৃঙ্খলা নিয়েও ভুড়ি ভুড়ি অভিযোগ জমা পড়েছে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “বেছে বেছে তৃণমূলকর্মীদের হেনস্থা করা হচ্ছে। কেন? তৃণমূলকে হাতের কাছে পাওয়া যায় বলে?” ডেবরায় অনুষ্ঠিত প্রশাসনিক বৈঠকের মাঝে ঝাড়গ্রামার থানার আইসি-কে দাঁড় করিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আপনাকে তো কাজ করতে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু আপনি তো ওখানে গিয়ে কাজের থেকে অকাজ করছেন।”

৩০৬টি অভিযোগ এসেছে জেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে৷ পুলিশের কাজে গাফিলতি রয়েছে৷ অভিযোগ জানাতে এলে সাধারণ মানুষকে হেনস্তা করা হচ্ছে৷ ছ’মাসের তথ্য আমার কাছে রয়েছে৷

এদিনের প্রশাসনিক বৈঠকে বিডিওদেরও কাজ নিয়েও উষ্মা প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ হুঁশিয়ারির সুরে জানান, বাংলা আবাস যোজনা লিখতে হবে৷ আবাস যোজনা লিখছেন না বিডিওরা৷ না লিখলে এবার ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷ ঝাড়গ্রামের বিডিও অফিস থেকে বালি খাদান নিয়ে দুর্নীতি হচ্ছে৷ বিনপুর-১-এর বিডিওর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে৷