শীতের ছুটিতে ঘুরে আসতেই পারেন ওখড়ে

195

ওয়েব ডেস্ক, ২৬ ডিসেম্বরঃ রবি ঠাকুর লিখেছিলেন– ‘হেথা নয়, অন্য কোথা, অন্য কোনোখানে’।

বেড়াতে যেতে কার না ভাল লাগে! অফিসে দু’দিনের ছুটি পেলেই মন ডানা মেলে উড়তে চায় অচেনা দিগন্তের ক্যানভাসে। শীতের ভ্রমণ নিয়ে আলাদা একটা উন্মাদনা কাজ করে ভ্রামণিকদের মধ্যে। কারণ, শীতকালেই সব চেয়ে স্পষ্ট দেখা যায় ল্যান্ডস্কেপ। ভ্রমণ রসিকরা তাই বেরিয়ে পড়েন জঙ্গলে-পাহাড়ে।

শীতে আপনার ভ্রমণ গন্তব্য হতে পারে পশ্চিম সিকিমের ছোট্ট সুন্দর গ্রাম ওখড়ে। এই গ্রামের কাছেই রয়েছে দার্জিলিং। দার্জিলিঙে বেড়াতে যাননি এমন ভ্রমণরসিক বোধ হয় খুঁজে পাওয়া দায়! কিন্তু, অনেকেই জানেন না, দার্জিলিঙের কাছেই রয়েছে সুন্দরের মনোরম ঠিকানা ওখড়ে। গ্রামটি দেখতে ছবির মতো সুন্দর। যারা ভ্রমণ ভালবাসেন তাদের কাছে দ্রুতই প্রিয় হয়ে উঠবে ওখড়ে।

এই শৈল জায়গাটি নির্জানতাপ্রিয়দের কাছে আদর্শ গ্রামের সমান। রয়েছে রডোডেনড্রনের, ফার, ওক ও হেমলক ঘেরা জঙ্গল। জেনে রাখুন, এখানে বিদ্যুতের ব্যবস্থা নেই। রাতের অন্ধকারে অজস্র জোনাকি ঘুরে বেড়ায়। এ দৃশ্য দেখতে লাগে দারুণ। এই পাহাড়ে দাঁড়িয়ে অপরূপ কাঞ্চনজঙ্ঘার রূপ উপভোগ করা যায়।

নিউ জলপাইগুড়ি থেকে ভাড়া গাড়িতে সরাসরি ওখড়ে পৌঁছনো যায়। স্টেশনের বাইরে ভাড়া গাড়ি মেলে। খরচ ৪০০০ থেকে ৫০০০-এর মধ্যে। দূরত্ব প্রায় ১২৫ কিলোমিটার। এখন এখানে নানা মানের হোটেল গড়ে উঠেছে। সাধ্য মতো থাকার জায়গা বেছে নিন। তবে আগে থেকে বুকিং থাকলে ভাল।

জায়গাটি নির্জন এবং কোলাহলমুক্ত। পাশেই রয়েছে আরও কয়েকটি গ্রাম। সেখানেও গাড়ি করে ঘুরে আসতে পারেন। সিকিমের পাহাড়ি প্রকৃতি বহুদিন ধরেই পর্যটকরা উপভোগ করে আসছেন।