জাতি বৈষম্যমূলক মন্তব্যের অভিযোগে গ্রেফতার যুবরাজ সিং, ছাড়া পেলেন অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে

116

ওয়েব ডেস্ক, ১৮ অক্টোবরঃ গ্রেপ্তার করা হল ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অলরাউন্ডার যুবরাজ সিংকে। জাতি বৈষম্যমূলক মন্তব্যের কারণে যুবরাজ সিংকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে কিছুক্ষণের মধ্যে অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে, হরিয়ানার হিসার জেলা থেকে জাতি বৈষম্যমূলক মন্তব্যের কারণে যুবরাজ সিংকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ঝাঁসি শহরে এসসি-এসটি আইন মোতাবেক যুবরাজের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল। তবে এক বছরের পুরনো এই মামলায় যুবরাজকে সঙ্গে সঙ্গেই জামিন দিয়ে দেওয়া হয়েছে। হাইকোর্টের নির্দেশে যুবরাজকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেওয়া হয়েছে।

২০১৯ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেছিলেন যুবরাজ সিং। তার উপরে গত বছর এই নতুন বিপদ তাঁর উপরে অশনিসংকেত হয়ে ঘোরাফেরা করতে শুরু করেছিল। সেইসময় সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর বিরুদ্ধে জোরাল প্রতিবাদ হয়েছিল। টুইটারে #যুবরাজসিংক্ষমা_চাও ট্রেন্ড হতেও শুরু করেছিল। বস্তুতপক্ষে গত বছর লকডাউনের সময় যুবরাজ সিং টিকটকে নিজের ডান্স ভিডিয়ো আপলোড করেছিলেন। এই ভিডিয়ো নিয়েই ইনস্টাগ্রামে রোহিত শর্মার সঙ্গে তাঁর কথাবার্তা চলছিল। সেইসময় যুবরাজ অশালীন টিপ্পনি করেন। এই মন্তব্য জাতিগত বৈষম্যকেই উসকে দিয়েছিল।

ঘটনাটি ক্রমশ খারাপ দিকে ঘুরতে শুরু করেছিল। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে যুবরাজ গোটা বিশ্বের কাছে নিজের ভুল স্বীকার করে নিয়েছিলেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটা পোস্ট করে তিনি এই ঘটনার জন্য অনুশোচনাও করেন।

ক্ষমা চেয়ে যুবরাজ যে টুইট করেছিলেন, সেখানে তিনি লিখেছিলেন, ‘আমি আপনাদের একটা বিষয় স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিতে চাই, আমি কখনই জাতি, বর্ণ, রং এবং লিঙ্গ নিয়ে কখনই কোনও অসম্মানসূচক ইচ্ছাকৃত কথাবার্তা বলতে চাইনি। আমি জনকল্যাণে নিজের জীবন উৎসর্গ করেছি। আজও সেই একই কাজ করে যাচ্ছি। আমি ব্যক্তিগত জীবনে কোনও অপবাদ চাই না। গৌরব এবং সম্মানের সঙ্গে আমি জীবন কাটাতে চাই।’